মঙ্গলবার, ২৮ জুন ২০২২, ০২:৩৫ অপরাহ্ন

শিরোনাম ::
স্বামী পুরুষাঙ্গ কেটে দিল স্ত্রী, ঘাতক স্ত্রী আটক কোহলির আরও একটি রেকর্ড ভাঙ্গলেন বাবর যুক্তরাষ্ট্রের গ্রিন কার্ড পেলেন শাকিব খান বন্যাদুর্গত এলাকায় কাটা রাস্তায় সেতু বা কালভার্ট নির্মাণের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর হজ পালনের জন্য সৌদি পৌঁছেছেন ৪২ হাজার হজযাত্রী মহাসড়কে শতাধিক পরিবারের বসবাস, রাত কাটছে ভয়-আতঙ্কে সিলেটে সরকারি উদ্যোগে আড়াই কোটি টাকার ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ সিলেটে বন্যাকবলিত এলাকায় শিক্ষা নিয়ে আশঙ্কা সিলেটে ভয়াবহ বন্যার বড় কারণ হাওর দখল: গবেষণা সুনামগঞ্জে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত ১৫০০ কোটি টাকার সড়ক-সেতু যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসে ট্রাকের মধ্যে ৪৬ জনের মরদেহ উদ্ধার ত্রাণের কোন সংকট নেই, প্রচুর ত্রাণসামগ্রী স্থানীয় প্রশাসনের হাতে রয়েছে: হানিফ সিলেটে পানি কমছে ধীর গতিতে বানভাসীদের চরম দুর্ভোগ প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ও কল্যাণ তহবিলে অনুদান প্রদান করলো এনআরবি ব্যাংক ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রীর কন্যাকে কটূক্তি, যুবক গ্রেফতার




হবিগঞ্জে প্লাবিত ৩২ ইউনিয়ন, শতাধিক প্রতিষ্ঠানে পাঠদান বন্ধ

Untitled 1 copy 64 600x337 1 - BD Sylhet News




ডেস্ক রির্পোট :: চলতি বন্যায় হবিগঞ্জের ছয়টি উপজেলার ১১৬টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পাঠদান বন্ধ করা হয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানে বানভাসি মানুষদের আশ্রয় দেওয়া হয়েছে। বানভাসি মানুষ বাড়িঘর ছেড়ে আশ্রয় নিয়েছেন উঁচু উঁচু স্থানে অবস্থিত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে। আশ্রয়কেন্দ্রগুলোতে খাদ্য ও বিশুদ্ধ পানির সংকট দেখা দিয়েছে।

মঙ্গলবার ও বুধবার দুপুর পর্যন্ত কোনও বৃষ্টিপাত না হওয়ায় হবিগঞ্জের নদ-নদীর পানি স্থির থাকলেও সিলেট-সুনামগঞ্জের বন্যার পানি হবিগঞ্জের হাওরগুলোতে আসায় ছয়টি উপজেলায় বন্যা দেখা দিয়েছে।

হবিগঞ্জের নয় উপজেলার মধ্যে ছয়টি উপজেলার ৩২টি ইউনিয়ন বন্যায় প্লাবিত হয়েছে। বিশেষ করে ভাটি উপজেলা আজমিরীগঞ্জ, বানিয়াচং, নবীগঞ্জ ও লাখাই উপজেলার বন্যার পরিস্থিতি দিন দিন অবনতি হচ্ছে। এছাড়া হবিগঞ্জ সদর ও বাহুবল উপজেলার আংশিক এলাকা প্লাবিত হয়েছে। পানি বাড়লে নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হতে পারে বলে ধারণা করছে উপজেলা প্রশাসন।

বন্যা পরিস্থিতির কারণে ছয় উপজেলার মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ের ৩৬টি এবং প্রাথমিক পর্যায়ের ৮০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষা কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়া কঠিন হয়ে পড়েছে। এর মধ্যে কিছু প্রতিষ্ঠানে পানি ঢুকে প্লাবিত হয়েছে। এ জন্য জেলা শিক্ষা কার্যালয় ছয় উপজেলার ১১৬টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করেছেন। এর মধ্যে যে বিদ্যালয়গুলো এখনো প্লাবিত হয়নি, সেগুলো আশ্রয়কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে। বানভাসি মানুষ এসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আশ্রয় নিয়েছে।

হবিগঞ্জ জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস জানায়, নবীগঞ্জে ১৮টি, আজমিরীগঞ্জে ২২টি, বানিয়াচং উপজেলায় ৪০টিসহ মোট ৮০টি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্লাবিত হয়েছে। এ ছাড়া ৫২টি প্রাথমিক বিদ্যালয় বন্যার্তদের জন্য আশ্রয়কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে।

জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোহাম্মদ রুহল্লাহ জানান, যে ছয়টি উপজেলায় বন্যা দেখা দিয়েছে, সেসব এলাকার প্রতিষ্ঠানে শিক্ষা কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়া সম্ভব হচ্ছে না। এ ছাড়া বন্যাকবলিত মানুষকে আশ্রয় দিতে গত রোববার থেকে মাধ্যমিক পর্যায়ের ৩৬টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা হয়েছে।

শেয়ার করুন...











বিডি সিলেট নিউজ মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। © ২০২২
Design & Developed BY Cloud Service BD