রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ০৪:৪৫ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম ::
আমেরিকা ইমিগ্রেন্ট ভিসা সংক্রান্ত সেমিনার আগামী ৭ জুন বিকেলে ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নেবে গভীর নিম্নচাপ, উত্তাল সাগর গ্রীষ্মকালীন ও ঈদুল আজহার ছুটিতে ২৮ দিন বন্ধ থাকছে শাবিপ্রবি এমপির ছেলে এমপি হোক আমি চাইনা: ব্যারিস্টার সুমন সুনামগঞ্জে ফুটবল খেলা নিয়ে দু’পক্ষের সংর্ঘষে আহত ৩০ জৈন্তাপুরে কথা কাটাকাটি নিয়ে দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত ৬ মেয়র আনোয়ারুজ্জামানকে সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাবের অভিনন্দন সিসিকের হোল্ডিং ট্যাক্স বাতিল, রি-এসেসমেন্টের সিদ্ধান্ত যুক্তরাজ্যের লোওয়েস্টফ্টে প্রথম মেয়র হলেন জগন্নাথপুরের নাসিমা সিলেটে আরেকটি কূপে মিলল গ্যাসের সন্ধান জৈন্তাপুরে ফেনসিডিলসহ নারী আটক তীব্র গরমে বিশুদ্ধ পানি ও স্যালাইন বিতরণ করছে তপোবন যুব ফোরাম প্রধানমন্ত্রী ২০৪১ সালের মধ্যে স্মার্ট ও সোনার বাংলাদেশে পরিণত করতে চান: এড. নাসির খান জলবায়ু পরিবর্তনের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় কৃষি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে: কৃষিমন্ত্রী শ্রীমঙ্গলে মুখে বিষ ঢেলে প্রতিবন্ধী শিশু সন্তান হত্যা, বাবা-মা আটক




শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে এশিয়া কাপের ফাইনালে ভারত

FB IMG 1694547378316 - BD Sylhet News




স্পোর্টস ডেস্ক:: এশিয়া কাপের সুপার ফোরে প্রথম ম্যাচে জয় পাওয়া ভারত-শ্রীলঙ্কার সামনে আজ ফাইনাল নিশ্চিতের হাতছানি। দুই দলের যে জিতবে সেই এক পা দিয়ে রাখবে ফাইনালে। এমন সমীকরণে টসে জিতে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেয় ভারতের অধিনায়ক রোহিত শর্মা। আগে ব্যাট করতে নেমে ভালো সূচনা পেয়েছিল টিম ইন্ডিয়া। কিন্তু মিডেল ওভারে লঙ্কান স্পিনার দুনিথ ওয়েল্লালাগে ও চারিথ আসালাঙ্কার ঘূর্ণিতে দিশেহারা হয়ে যায় কোহলিদের ব্যাটিং অর্ডার। শেষ পর্যন্ত ৪৯.১ ওভারে ২১৩ রানেই অলআউট হয়ে যায় রোহিত শর্মার দল। ছোট লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ভারতীয় বোলারদের তোপে ১৭২ রানে অলআউট হয়ে যায় দাসুন শানাকার দল। ফলে ৪১ রানের জয়ে এশিয়া কাপের ফাইনাল নিশ্চিত করেছে ভারত।

কলম্বোর আর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে শ্রীলঙ্কার হয়ে রান তাড়া করতে নামেন পাথুম নিশাঙ্কা ও দিমুথ করুণারত্নে। ইনিংসের তৃতীয় ওভারেই সাফল্যের দেখা পায় ভারত। জাসপ্রিত বুমরাহর বলে ৬ রানে আউট হন নিশাঙ্কা। এরপর ক্রিজে বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি কুশল মেন্ডিস ও দিমুথ করুণারত্নেও। এই দুই ব্যাটার ১৫ ও ২ রানে সাজঘরে ফিরেছেন। ২৫ রানে তিন উইকেট হারিয়ে বেশ বিপদের মুখে পড়ে লঙ্কানরা।

সেখান থেকে দলের হাল ধরেন চারিথ আসালঙ্কা ও সাদিরা সামারাবিক্রমা। দুজনে ধীরে ধীরে দলকে এগিয়ে নিতে থাকেন। তবে জুটি খুব বড় হতে দেননি কুলদীপ যাদব। ১৭ রান করা সামারা বিক্রমাকে স্ট্যাম্পিংয়ের ফাঁদে ফেলেন তিনি। নিজের পরের ওভারে আরেক সেট ব্যাটার আসালঙ্কাকে ফেরান কুলদীপ। ২২ রান করেন তিনি। লংকানদের বিপদ আরো বাড়ে যখন মাত্র ৯ রান করে রবীন্দ্র জাদেজার বলে ফেরেন অধিনায়ক দাসুন শানাকা।

দলীয় শতকের আগে ৬ উইকেট হারিয়ে ম্যাচ থেকে একরকম ছিটকে যায় শ্রীলঙ্কা। তবে সেখান থেকে পাল্টা প্রতিরোধ গড়েছেন ধনঞ্জয় ডি সিলভা ও ওয়েল্লালাগে। তাদের ব্যাটে জয়ের স্বপ্ন দেখতে থাকে লঙ্কানরা। তবে দলীয় ১৬২ রানে ডি সিলভা আউট হলে ভাঙে ৬৩ রানের জুটি। ৬৬ বলে ৪১ করেন তিনি। শেষ দিকে দুনিথ ওয়েল্লালাগে চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন। ভারতীয় বোলারদের তোপে ১৭২ রানে থামে লঙ্কানদের ইনিংস।

এর আগে টসে জিতে ব্যাট করতে নেমে পাওয়ার প্লেতে উড়ন্ত সূচনা এনে দেন দুই ভারতীয় ওপেনার। রোহিত শর্মা ও শুভমন গিলের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে দশ ওভারে বিনা উইকেটে ৬৫ রান তুলে ভারত। পাকিস্তানের বিপক্ষে অর্ধশতক পাওয়া দুই ব্যাটার বড় সংগ্রহের ইঙ্গিত দিচ্ছিলেন। তবে ইনিংসের ১২তম ওভারে লঙ্কান শিবিরে স্বস্তি এনে দেন দুনিথ ওয়েল্লালাগে। গিলকে এই বাঁহাতি স্পিনার বোকা বানিয়ে বোল্ড আউট করে সাজঘরের পথ দেখান। এরপর ক্রিজে নেমে তরুণ এই লঙ্কান স্পিনারের জালে আটকা পড়েন আগের ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান বিরাট কোহলি।

কলম্বোতে সমর্থকদের ১৬তম ওভারে আরো বড় আনন্দের উপলক্ষ এনে দেন ২০ বছর বয়সী এই তরুণ। তার ঘূর্ণি জালে আটকা পড়েন ভারতীয় অধিনায়ক রোহিত শর্মাও। দলীয় ৮০ রানে শূন্য উইকেট থেকে ৯১ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে ভারত। চতুর্থ উইকেট জুটিতে দলের হাল ধরেন আগের ম্যাচের আরেক সেঞ্চুরিয়ান লোকেশ রাহুল। এই ডানহাতি ব্যাটার সঙ্গী হিসেবে পান ইশান কিশানকে।

এই জুটিতে যখন প্রতিরোধের আভাস দেয় সফরকারীরা তখনও শ্রীলঙ্কার ত্রাতা হয়ে আসেন ভেল্লালাগে। এবার তিনি ফাঁদে ফেলেন রাহুলকে। নিজের বলে নিজেই ক্যাচ নিয়ে রাহুল নিজের চতুর্থ শিকার বানান লঙ্কান বোলার। ফেরার আগে রাহুল করেন ৪৪ বলে ৩৯ রান। উইকেটে থিতু হয়ে যাওয়া আরেক ব্যাটার ইশানকে ফাঁদে ফেলেন আসালাঙ্কা। ৪৪ বলে ৩৯ রান করেন ইশান।

নিয়মিত ব্যাটারদের হারিয়ে এরপর শুধু হতাশাই দেখে ভারত। ভরসা হয়ে দাঁড়াতে পারেননি হার্দিক পান্ডিয়াও। তাঁকে ফিরিয়ে দিয়ে প্রথমবার পাঁচ উইকেট নেওয়ার উল্লাসে ভাসেন ভেল্লালাগে। ১৪ ম্যাচের ক্যারিয়ারে এটাই তার প্রথম ফাইফার। শেষ দিকে বোলাররা চেষ্টা করলেও বড় লক্ষ্য জমা করতে পারেননি ভারতের স্কোরবোর্ডে। শেষ পর্যন্ত ২১৩ রানে থামতে হয় রোহিত শর্মার দলকে। শ্রীলঙ্কার হয়ে বল হাতে সর্বোচ্চ ৫ উইকেট নেন ওয়েল্লালাগে।

শেয়ার করুন...











বিডি সিলেট নিউজ মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। © ২০২৪
Design & Developed BY Cloud Service BD