মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ০১:৪৯ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম ::
বড়লেখায় যুবলীগের বিক্ষোভ মিছিল বিকাশ প্রতারকের সঙ্গে প্রেম করে টাকা উদ্ধার করলেন কলেজছাত্রী কেনিয়ায়‘মৃত’ব্যক্তির চিৎকারে ভয়ে পালালেন মর্গের কর্মীরা! সিলেটে বৃহস্পতিবার ৮ ঘন্টা থাকবে না গ্যাস সিলেটে জেলা যুবলীগের বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ মুজিব বর্ষে বড়লেখার দৌলতপুর মাদ্রাসায় মাস্ক কোরআন ও ফলজ গাছ বিতরণ নিসচা জুড়ী উপজেলা শাখার কমিটির অনুমোদন,বড়লেখা উপজেলা শাখার শুভেচ্ছা ফেনীতে নিজ হাতে সন্তানের মাথা ফাটিয়ে কোলে নিয়ে ভিক্ষা! ছাতকে উত্যেক্তকারিদের হামলায় নারী আহত: থানায় অভিযোগ সেনাপ্রধান জেনারেল আজিজের পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন হাজী সেলিমের স্ত্রীর ইন্তেকাল দেশে আরো ৫১টি অনলাইন নিউজ পোর্টাল অনুমোদন পেল ওআইসির নতুন মহসচিব নির্বাচিত হয়েছেন হিসেইন ব্রাহিম তাহা নিসচা’র ২৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী সফল করার লক্ষ্যে বড়লেখা নিসচা’র প্রস্তুতি সভা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব অনলাইন কুইজ প্রতিযোগিতা ১ ডিসেম্বর থেকে শুরু
cloudservicebd.com

এগিয়ে চলছে স্বপ্নের পদ্মা সেতু: বসল ৩৬তম স্প্যান

20201106 115014 - BD Sylhet News

বিডি সিলেট নিউজ ডেস্ক:: পদ্মা সেতুতে বসানো হয়েছে ৩৬তম স্প্যান। আর এর মধ্য দিয়েই দৃশ্যমান হলো ৫ হাজার ৪০০ মিটার অর্থাৎ প্রায় সাড়ে ৫ কিলোমিটার সেতু।
শুক্রবার সকাল ৯টা ৪২ মিনিটে মাওয়া প্রান্তের ২ ও ৩ নম্বর খুঁটির ওপর ১-বি নামের ৩৬তম স্প্যানটি স্থাপনের কাজ শেষ হয়।পদ্মা সেতুর নির্বাহী প্রকৌশলী (মূল সেতু) দেওয়ান আব্দুল কাদের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে বৃহস্পতিবার মাওয়া কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে ‘তিয়ান ই’ নামের ভাসমান ক্রেনে ১-বি নামের ধুসর রঙের স্প্যানটি খুঁটির কাছে নিয়ে যাওয়া হয়। এরপরই শুরু হয় খুঁটির ওপর স্প্যান বসানোর কাজ।এর আগে ১১ অক্টোবর ৩২তম স্প্যান, ১৯ তারিখ ৩৩তম স্প্যান, ২৫ তারিখ ৩৪তম স্প্যান ও ৩১ তারিখ ৩৫তম স্প্যান বসানো হয়। নভেম্বর মাসেও চারটি স্প্যান বসানোর পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রকৌশলী (মূল সেতু) দেওয়ান আব্দুল কাদের।

২০১৪ সালের ডিসেম্বরে পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ শুরু করা হয়। ২০১৭ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর ৩৭ ও ৩৮ নম্বর পিলারে প্রথম স্প্যানটি বসানোর মধ্য দিয়ে দৃশ্যমান হয় পদ্মা সেতু। এরপর একে একে বসানো হলো ৩৫টি স্প্যান। প্রতিটি স্পেনের দৈর্ঘ্য ১৫০ মিটার। ৪২টি পিলারের ওপর ৪১টি স্প্যান বসিয়ে ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ পদ্মা সেতু নির্মাণ করা হবে।মূল সেতু নির্মাণের জন্য কাজ করছে চীনের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি লিমিটেড (এমবিইসি) ও নদীশাসনের কাজ করছে দেশটির আরেকটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান সিনো হাইড্রো করপোরেশন।

দুটি সংযোগ সড়ক ও অবকাঠামো নির্মাণ করেছে বাংলাদেশের আব্দুল মোমেন গ্রুপ লিমিটেড। বহুমুখী এই সেতুর মূল আকৃতি হবে দ্বীতল, যা কংক্রিট ও স্টিল দিয়ে তৈরি করা হচ্ছে।

শেয়ার করুন...
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  


বিডি সিলেট নিউজ মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। © ২০১৭ - ২০২০
Design & Developed BY Cloud Service BD