শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ০২:২৯ অপরাহ্ন

শিরোনাম ::
সিলেটে ২৪ ঘণ্টায় ২০৩ মিলিমিটার বর্ষণ সিলেটে আবারও বন্যার শঙ্কা, প্রস্তুত ৫৫১ আশ্রয় কেন্দ্র সিলেটে ২২ দিনে ১৫ কোটি টাকার সাদা পাথর লুট সিলেটসহ ছয় অঞ্চলে ৬০ কি.মি বেগে ঝড় হতে পারে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য সাড়ে ১১ হাজার কোটি টাকার বাজেট অনুমোদন সিলেটে অবিবাহিত পুরুষের হার সবচেয়ে বেশি সিলেট ওসমানী হাসপাতাল ‘কক্লিয়ার ইমপ্লান্ট’ কার্যক্রমে শতভাগ সফলতা অর্জন বিয়ানীবাজারে পুলিশের অভিযানে ৮০ বস্তা চিনি সহ গ্রেফতার ২ সিলেট এসে হঠাৎ অসুস্থ সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী, হেলিকপ্টারে ঢাকায় নেওয়া হয়েছে সিলেটে এসএসসির খাতা চ্যালেঞ্জ করে ফেল থেকে পাস করলেন ৩৫ শিক্ষার্থী সিলেটে বিপুল পরিমান চোরাই মোবাইলসহ গ্রেফতার ৬ সৌদিতে হজে গিয়ে ১৫ বাংলাদেশির মৃত্যু টিলাধসে স্বপরিবারে যুবদল নেতার মৃত্যুতে সিলেট যুবদলের শোক টিকটকার প্রিন্স মামুন গ্রেফতার মসজিদে আজানরত অবস্থায় এক মুসল্লির মৃত্যু




সিলেটে পাহাড় ধসে একই পরিবারের ৩ জন নি.হ.ত

FB IMG 1718009579249 - BD Sylhet News




বিডি সিলেট ডেস্ক:: সিলেট নগরীর মেজরটিলার চামেলীবাগ আবাসিক এলাকায় টিলার মাটি ধসে মাটি চাপা পড়া তিনজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। মাটিচাপা পড়ার প্রায় ৬ ঘন্টা পর সোমবার বেলা সাড়ে ১২টার দিকে তাদের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

নিহতরা হলেন- আগা করিম উদ্দিন (৩১), তার স্ত্রী শাম্মী আক্তার রুজি (২৫) ও তাদের শিশু নাফজি তানিম (২)।

এর আগে ভারি বৃষ্টিতে সোমবার ভোর ৬টায় চামেলীবাগ এলাকার ২ নম্বর রোডের একটি টিলা ধসে ৮৯ নম্বর বাসার উপর পড়ে। এতে এই বাসায় ভাড়া থাকা ছয় সদস্য মাটির নিচে চাপা পড়েন। তিনজনকে তাৎক্ষণিক জীবিত উদ্ধার করা হয়। তাদের আহত অবস্থায় সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বাকী তিনজনের সন্ধান মিলছিলো না।

দুপুর সাড়ে ১২টায় এই তিনজনের মরদেহ উদ্ধারের তথ্য নিশ্চিত করে সিলেট সিটি করপোরেশনের জনসংযোগ কর্মকর্তা সাজলু লস্কর বলেন, সকাল থেকে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস মাটি চাপ পড়াদের উদ্ধারে অভিযান শুরু করে। এরপর বেলা ১২টার দিকে সেনাবাহিনী উদ্ধার অভিযানে নামে। সেনাবাহিনী অভিযান শুরুর কিছুক্ষণের পর নিঁখোজদের মরদেহ পাওয়া যায়।

চামেলিবাগের অবস্থান সিলেট সিটি করপোরেশনের ৩৫ নং ওয়ার্ডে। এর আগে সকালে এই ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. জাহাঙ্গীর আলম জানিয়েছিলেন, এই বাসায় দুই ভাই তাদের স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে থাকতেন। ভূমি ধসে ঘরের নিচে ৬ জন আটকা পড়েছিলেন। পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও আমরা এসে এক ভাই, তার স্ত্রী ও তাদের সন্তানকে সুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করতে পেরেছি। তবে আরেক ভাই, তার স্ত্রী ও ২ বছরের সন্তান নিখোঁজ আছেন।

কাউন্সিলর জানান, বৃষ্টির কারণে উদ্ধার আভিযান কিছুটা ব্যাহত হয়। এছাড়া রাস্তা ছোট হওয়ার কারণে ফায়ার সার্ভিস ও সিটি করপোরেশনের গাড়ি ঢুকতে পারছে না। তাই হাত দিয়েই উদ্ধার কার্যক্রম চালানো হচ্ছে। ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট কাজ করছে। সঙ্গে পুলিশ, সিসিক কর্মী ও স্থানীয়রা সহযোগিতা করছেন।

এদিকে সোমবার দুপুরে যুক্তরাজ্য থেকে ফিরেই সরাসরি দুর্ঘটনাস্থলে ছুটে যান সিলেট সিটি মেয়র আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী। এসময় তিনি বলেন, দুর্ঘটনাস্থলে যাওয়ার গলিটি অত্যন্ত সরু। যে কারণে ফায়ার সার্ভিস ও সিসিকের গাড়ি বা মাটি কাটার যন্ত্র ঢুকানো যাচ্ছে না। উদ্ধার তৎপরতা ম্যানুয়ালি চালানো হচ্ছে।

স্থানীয়রা জানান, গত শনিবার থেকে সিলেটে ভারি বর্ষণ হচ্ছিল। এ অবস্থায় সিলেটে টিলার মাটি নরম হয়ে যায়। সোমবার (১০ জুন) ভোরে মেজরটিলা চামেলিবাগের একটি টিলা ধসে পার্শ্ববর্তী বাড়ির উপর পড়ে। এতে একই পরিবারের ১০ জন মাটি চাপা পড়লে তাৎক্ষনিক স্থানীয় জনতা ৫ জনকে অক্ষত এবং ২ জনকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আর মটির নীচে চাপা পড়ে যায় তিনজন।

হতাহতদের স্বজনরা জানান, ওই বাড়িতে বসবাস করতেন মরহুম আগা রফি উদ্দিন খানের ছেলে আগা আব্দুর রহিম, মাহমুদ উদ্দিন, আগা বাবুল মিয়া, বাচ্চু মিয়া, শফিক উদ্দিন, করিম উদ্দিন, তার স্ত্রী শাম্মী আক্তার ও তাদের দুই বছরের শিশু সন্তান। সোমবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে ভারি বর্ষণচলাকালে বিকট শব্দে বজ্রপাত হলে পাহাড় ধসে পড়ে বাড়িতে লোকজন চাপা পড়েন। তাদের মধ্যে ৭জনকে উদ্ধার করেন জনতা। এরমধ্যে ২জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আর নিখোঁজ হন ৩ জন।

আবহাওয়া অধিদপ্তর সিলেটের তথ্য মতে, গত তিনদিন থেকে সিলেটে ভারি বর্ষণ হচ্ছে। গত শনিবার (০৮ জুন) রাত ৯টা থেকে ১২ টা পর্যন্ত ২২০ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়। রোববার (৯ জুন) ভোর ৬টা থেকে ৯টা পর্যন্ত ১৩৬ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়। এতে সিলেট নগরের বিভিন্ন স্থানে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। এছাড়া নগরের উপকন্ঠে টিলা ধসের শঙ্কা তৈরী হলেও প্রশাসনের পক্ষ থেকে সতর্ক বার্তার কিংবা ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা থেকে মানুষকে সরিয়ে নিতে কোনো উদ্যোগ পরিলক্ষিত হয়নি বলেও স্থানীয়দের অভিযোগ।

শেয়ার করুন...











বিডি সিলেট নিউজ মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। © ২০২৪
Design & Developed BY Cloud Service BD