সোমবার, ১৭ মে ২০২১, ০৩:৪২ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম ::
ফিলিস্তিন নিয়ে পোস্ট, আর্সেনাল তারকার পাশে ভক্তরা বড়লেখায় ২১ প্রবাসীকে সংবর্ধনা দিলো প্রবাসী অনলাইন গ্রুপ শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দেশের গণতন্ত্রের ইতিহাসে একটি মাইলফলক : রাষ্ট্রপতি দেশরত্ন থেকে বিশ্বরত্ন,শেখ হাসিনা আমাদের অহংকার – এডভোকেট নাসির উদ্দিন খান শেখ হাসিনার ৪০তম স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস আজ সিলেটের কোম্পানীগঞ্জে ফেসবুকে স্ট্যাটাস নিয়ে সংঘর্ষ, চেয়ারম্যান-মেম্বার আটক সিলেটের কানাইঘাটে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের কিল ঘুষিতে বৃদ্ধের মৃত্যু হাফিজ মজুমদারের সহধর্মিণীর মৃত্যুতে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর শোক গোয়াইনঘাটে সড়ক দুর্ঘটনায় মাদ্রাসা ছাত্র নিহত : আহত একই পরিবারে ৬ জন প্রয়াত এমপি’র কবর জিয়ারত ও স্ত্রীর খোঁজ-খবর নিলেন হাবিব আম-কাঠালী প্রথা বন্ধ হোক – আলী ফজল মোহাম্মদ কাওছার হাফিজ মজুমদারের সহধর্মিণী’র মৃত্যুতে সিলেট জেলা যুবলীগের শোক শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে সিলেট জেলা যুবলীগের কর্মসূচি হাফিজ মজুমদার এমপির স্ত্রীর ইন্তেকাল হাফিজ মজুমদারের সহধর্মিণী’র মৃত্যুতে সাবেক শিক্ষামন্ত্রী’র শোক প্রকাশ 
cloudservicebd.com

কিবরিয়া হত্যা মামলা : সিলেটের আদালতে বাবরসহ ১১ জন হাজি

20201022 132726 - BD Sylhet News

বিডি সিলেট নিউজ ডেস্ক:: সাবেক অর্থমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ নেতা শাহ এ এম এস কিবরিয়া হত্যা মামলায় অভিযুক্ত বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবর ও সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীসহ ১১ জনকে আদালতে হাজির হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২২ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ১১ টার দিকে সিলেটের দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল আদালতে তাদেরকে হাজির করা হয়। আজ এ মামলার সাক্ষ্য গ্রহণের ধার্য তারিখ।

এসময় সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী নিজে আদালতে হাজির হলেও কারান্তরীণ লুৎফুজ্জামান বাবরসহ অন্যান্য বন্দীদের সিলেটের কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে বিশেষ নিরাপত্তার মধ্যদিয়ে আদালতে হাজির করা হয়।

প্রসঙ্গত, ২০০৫ সালের ২৭ জানুয়ারি হবিগঞ্জ সদর উপজেলার বৈদ্যের বাজারে আওয়ামী লীগের ঈদ-পরবর্তী জনসভা শেষে বের হওয়ার পথে গ্রেনেড হামলায় গুরুতর আহত হন সাবেক অর্থমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ নেতা শাহ এ এম এস কিবরিয়া। আহত কিবরিয়াকে চিকিৎসার জন্য ঢাকা নেওয়ার পথে মারা যান। ওই হামলায় তাঁর ভাতিজা শাহ মঞ্জুরুল হুদা, আওয়ামী লীগের স্থানীয় নেতা আবদুর রহিম, আবুল হোসেন ও সিদ্দিক আলী নিহত হন। আহত হন ৭০ জন।

ঘটনার পরদিন আবদুল মজিদ খান বাদী হয়ে হত্যা ও বিস্ফোরক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে দুটি মামলা করেন। পরে মামলা দুটি সিআইডিতে হস্তান্তর করা হয়। তদন্ত শেষে ২০০৫ সালে ১৮ মার্চ শহীদ জিয়া স্মৃতি ও গবেষণা পরিষদের কেন্দ্রীয় সভাপতিসহ ১০ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে একটি অভিযোগপত্র দেয় সিআইডি। এই অভিযোগপত্রের বিরুদ্ধে আদালতে নারাজি আবেদন করেন বাদী মজিদ খান। পরে ২০০৭ সালে মামলাটি পুনঃ তদন্তের জন্য ফের সিআইডিকে দায়িত্ব দেওয়া হয়।

মামলার পঞ্চম তদন্তকারী কর্মকর্তা সিলেট অঞ্চলের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) মেহেরুন্নেসা পারুল সর্বশেষ ২০১৪ সালের ১৩ নভেম্বর হবিগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ আদালতে সম্পূরক অভিযোগপত্র দাখিল করেন। এতে নতুন করে সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবর, বিএনপির নেতা ও সাবেক প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক সচিব হারিছ চৌধুরী, সিলেটের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, হবিগঞ্জ পৌরসভার মেয়র ও জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক গোলাম কিবরিয়া, মাওলানা তাজউদ্দিনের ভগ্নিপতি হাফেজ মো. ইয়াহিয়াসহ আবু বকর, দেলোয়ার হোসেন, শেখ ফরিদ, আবদুল জলিল ও মাওলানা শেখ আবদুস সালামকে আসামি করা হয়। তাঁদের বিরুদ্ধে বোমা হামলা ও হত্যার অভিযোগ আনা হয়।

এর আগে ২০০৫ সালের ১৮ মার্চ প্রথম দফায় ১০ জনের বিরুদ্ধে ও দ্বিতীয় দফায় ২০১১ সালের ২০ জুন আসামির সংখ্যা ১৬ জন বাড়িয়ে ২৬ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেওয়া হয়। তাঁদের মধ্যে দুজন ভারতে মারা যান। আর তৃতীয় দফায় আসামির সংখ্যা আরও নয়জন বাড়িয়ে এ মামলায় মোট আসামি করা হয় ৩৫ জনকে।

 

শেয়ার করুন...
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  


বিডি সিলেট নিউজ মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। © ২০২১
Design & Developed BY Cloud Service BD