শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ১০:২৭ অপরাহ্ন

শিরোনাম ::
সৌদিতে হজে গিয়ে এখন পর্যন্ত ৬৪ বাংলাদেশির মৃত্যু ৩৫ বছর একটানা মসজিদের ইমামতি শেষে রাজকীয় বিদায় শাশুড়িকে বাঁ-চা-তে গিয়ে প্রা’ণ গেল বউয়ের ৪ জনের উমরা হজ্বসহ শতাধিক কৃতী শিক্ষার্থীকে পুরস্কৃত করলো বরুণা মাদরাসা তপোবন যুব ফোরামের উদ্যোগে দুই রেমিট্যান্স যোদ্ধাকে সংবর্ধনা সুনামগঞ্জে সুরমা নদীর পানি বিপৎসীমার ওপরে, বেড়েছে ভোগান্তি কোটা সংস্কারের নামে বিএনপি জামায়াতের সন্তানেরা মাঠে নেমেছে : নিখিল সিলেটে ‘বুঙ্গার-চিনি-কান্ডে’ পুলিশের হাতে আটক ৫ জনের পরিচয় জানা গেল বাংলাদেশে বিনিয়োগ থেকে সরে দাঁড়ালো কোকাকোলা! অনন্ত-রাধিকার বিয়ের অনুষ্ঠানে সস্ত্রীক ধোনি সিলেটে ‘বুঙ্গার চিনি’ কিনে আলোচনায় দুই ছাত্রলীগ নেতা মাত্র সাত মাসে কোরআনে হাফেজ হলেন ফাহিম আবারো সিলেটে বড় চালান ভারতীয় চোরাই ‘চিনি’ জব্দ শেষ মুহূর্তে অসাধারণ গোলে ফাইনালে ইংল্যান্ড চীন সফর শেষে দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী




সুনামগঞ্জে স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদণ্ড

news image 1680718901 - BD Sylhet News




সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি : সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে যৌতুকের দাবীতে স্ত্রীকে নির্যাতন করে হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে সুনামগঞ্জ নারী ও নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতের বিচারক মো. জাকির হোসেন।

বুধবার (৫ জুলাই) দুপুরে এই রায় ঘোষণা করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী নান্টু রায়।

আদালত সূত্র থেকে জানা যায়, সুনামগঞ্জ জেলার জগন্নাথপুর উপজেলার হাছন ফাতেমাপুর গ্রামের মোস্তফা মিয়ার বাড়িতে জেলার দোয়ারাবাজার উপজেলার দিনাইরটুক গ্রামের মৃত আব্দুস ছত্তারের ছেলে গৌছ আলী শিক্ষক হিসেবে থাকতেন। একপর্যায়ে গৌছ আলী মোস্তফা মিয়ার মেয়ে কলি বেগমকে বিয়ের প্রস্তাব দিলে তিনি রাজি হন এবং মেয়েকে আসামি গৌছ আলীর সঙ্গে বিয়ে দেন।

কিছুদিন পর কলি বেগমের কাছে যৌতুক দাবি করতে শুরু করেন স্বামী। পরে বাধ্য হয়ে কলি বেগম তার বাবা মোস্তফা মিয়ার কাছে বিষয়টি জানালে তার বাবা বিভিন্ন সময়ে আসামিকে প্রায় পাঁচ লাখেরও বেশি টাকা প্রদান করেন। কিন্তু তারপরেও চাহিদা না মেটায় গৌছ আলী তার স্ত্রী কলি বেগমকে বার বার নির্যাতন করতে থাকেন।

২০০৫ সালের ৫ জুন কলি বেগমকে যৌতুকের টাকার জন্য বাবার বাড়ি যাওয়ার জন্য বললে কলি বেগম না গিয়ে বাড়িতেই বসে থাকেন। তখন কলি বেগমকে শারীরিক নির্যাতন করে বাজারে চলে যান। ওইদিনই দুপুরে গৌছ আলী বাড়িতে এসে কলি বেগমকে আবারও মারধর করেন। এ সময় ঘটনাস্থলেই কলি বেগমের মৃত্যু হয়। প্রথমে গৌছ আলী বিষয়টি আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করলেও পরের দিন খবর পেয়ে লাশের গায়ে আঘাতের চিহ্ন দেখে পুলিশকে খবর দেন।

পরবর্তীতে মোস্তফা মিয়া বাদী হয়ে আদালতে মামলা দায়ের করেন। দীর্ঘদিন মামলাটি চলার পর বুধবার দুপুরে তাকে মৃত্যুদণ্ড প্রদান করা হয়।

শেয়ার করুন...











বিডি সিলেট নিউজ মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। © ২০২৪
Design & Developed BY Cloud Service BD