বৃহস্পতিবার, ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৫:৩৮ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম ::
মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস নতুন প্রজন্মের কাছে তুলে ধরুণ : রাজনীতিকদের প্রতি রাষ্ট্রপতি আত-তাক্বওয়া মাসজিদের সিরাতুল মুস্তাক্বিম কনফারেন্স আগামী শুক্রবার ও শনিবার বিদ্যুৎ-গ্যাস-চাল-তেলসহ নিত্যপণ্যের দাম কমাতে হবে: বাসদ সুনামগঞ্জ জেলা আ.লীগের সম্মেলন ১১ ফেব্রুয়ারি এইচএসসির ফল, সিলেট বোর্ডে পাসের হার ৮১.৪০ শতাংশ এইচএসসি ও সমমানে পাসের হার ৮৫.৯৫ এড.নাসির উদ্দিন খানকে নিজ এলাকায় গণ সংবর্ধনার আয়োজন তুরস্কে ভূমিকম্প : ৭ বছরের মেয়ে ছোট ভাইকে আঁকড়ে রাখল ‘ভূমিকম্প’ থেকে বাঁচার আমল জেনে নিন মিশরে কোরআন প্রতিযোগিতায় তৃতীয় বাংলাদেশি তানভীর রোহিঙ্গা সমস্যা দ্রুত সমাধান হবে, আশা চীনা রাষ্ট্রদূত বেশি গোল দিয়ে কোয়ার্টারে মুক্তিযোদ্ধা মামলা তুলে স্বামীর ঘরে অভিনেত্রী সারিকা শাহজালাল বিমানবন্দরের তৃতীয় টার্মিনাল অক্টোবরে উদ্বোধন এইচএসসির ফল প্রকাশ কাল, যেভাবে জানা যাবে




ইতালিতে যথাযোগ্য মর্যাদায় স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত

ol 20230111150308 - BD Sylhet News




বিডিসিলেট ডেস্ক : ইতালির রোমে বাংলাদেশ দূতাবাসে যথাযোগ্য মর্যাদায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ‘স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস-২০২৩’ উদযাপন করা হয়েছে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু করা হয়। এরপর রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর বাণী পাঠ করেন দূতাবাসের ইকনমিক কাউন্সিলর মো. আল আমিন ও প্রথম সচিব (শ্রম) আসিফ আনাম সিদ্দিকী।

এসময় দূতাবাসের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের উপস্থিতিতে আলোচনা সভায় বক্তারা মুক্তিযুদ্ধ ও দক্ষ জাতি গঠনে বঙ্গবন্ধুর অবিস্মরণীয় অবদানের কথা তুলে ধরেন।

জাতির পিতার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভায় রাষ্ট্রদূত বলেন, দীর্ঘ সংগ্রামের ধারাবাহিকতায় বঙ্গবন্ধুই এ দেশের মানুষকে স্বাধীনতার পথে নিয়ে যান। বঙ্গবন্ধুর অনুপস্থিতিতে তাকে নেতৃত্বের আসনে রেখেই মুক্তিযুদ্ধ চলতে থাকে।

তিনি বলেন, ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর পাকিস্তানি সৈন্যদের বিরুদ্ধে নয় মাস সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধের পর চূড়ান্ত বিজয় অর্জিত হয়। তবে ১০ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের মধ্য দিয়ে বিজয়ের পূর্ণ স্বাদ পায় বাঙালি জাতি। পুরো জাতিই সেদিন বঙ্গবন্ধুকে প্রাণঢালা সংবর্ধনা জানানোর জন্য প্রাণবন্ত অপেক্ষায় ছিল। সেদিন আনন্দে আত্মহারা লাখ লাখ মানুষ ঢাকা বিমান বন্দর থেকে রেসকোর্স ময়দান পর্যন্ত তাকে স্বতঃস্ফূর্ত সংবর্ধনা জানান।

এক পর্যায়ে তিনি তৎকালীন রেসকোর্স ময়দানে সমবেত লাখো জনতার উদ্দেশ্যে বঙ্গবন্ধুর ধ্রুপদী বক্তৃতার উদ্ধৃতিটি তুলে ধরেন, ‘আমার জীবনের সাধ আজ পূর্ণ হয়েছে। আমার সোনার বাংলা আজ স্বাধীন ও সার্বভৌম রাষ্ট্র’।

অবশেষে রাষ্ট্রদূত মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে জাতির পিতার স্বপ্নের ‘সোনার বাংলাদেশ’ ও প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত ‘স্মার্ট বাংলাদেশ’ বিনির্মাণে সবাইকে কার্যকর ভূমিকা রাখার আহ্বান জানান।

পরে বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের শহীদ সদস্য, দেশ ও দেশের কল্যাণে জীবন উৎসর্গকারী মুক্তিযোদ্ধাদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে মোনাজাত করা হয়।

শেয়ার করুন...











বিডি সিলেট নিউজ মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। © ২০২২
Design & Developed BY Cloud Service BD