বুধবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২০, ০৬:০৫ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম ::
অপরাধী সংশোধন ও পূর্নবাসন সংস্থা সিলেটের কমিটি গঠিত বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য অবমাননাকারীদের ঐক্যবদ্ধভাবে প্রতিরোধ করতে হবে’ বড়লেখায় নিসচা’র ২৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভ ৫ টাকায় সারাদিন ইন্টারনেট ব্যবহারের পদ্ধতি তৈরি করলেন দুই বাংলাদেশি নিসচা’র ২৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সিলেট মহানগরের আলোচনা সভা গোলাপগঞ্জে অস্ত্রসহ ডাকাত আটক ম্যারাডোনার মৃতদেহ চুরির আশঙ্কা, ২০০ সশস্ত্র পুলিশ মোতায়েন নতুন তথ্য সচিব খাজা মিয়া যোগদান করেছেন ম্যারাডোনার মৃত্যুতে ‘ভাত খাচ্ছেন না’ নাটোরের বাবু সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের নবনিযুক্ত প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসারের দায়িত্ব গ্রহন আয়কর রিটার্ন দাখিলের সময় বাড়লো এক মাস মহান বিজয়ের মাস শুরু আজ বড়লেখায় যুবলীগের বিক্ষোভ মিছিল বিকাশ প্রতারকের সঙ্গে প্রেম করে টাকা উদ্ধার করলেন কলেজছাত্রী কেনিয়ায়‘মৃত’ব্যক্তির চিৎকারে ভয়ে পালালেন মর্গের কর্মীরা!
cloudservicebd.com

আপনাদেরকে বলছি। একটু শুনুন ! ভাবতে চেষ্ঠা করুন!

20200502 214435 - BD Sylhet News

সুদীপ্ত রায়:: জেনে না জেনে আক্রান্ত হয়ে যাচ্ছেন অনেকেই। একটু অবহেলার কারনে অসুস্থ হয়ে পড়ছেন।করোনা উঁকি ঝুঁকি মারতে শুরু করেছে দেশের সর্বত্র। একজনের কারনে বিপন্ন হতে চলেছে আরেকজনের জীবন!আর কত! আর কত অবহেলা করবেন আপনারা!

একটি বিষয় খেয়াল করুন। ধরুন আক্রান্ত একজন ব্যাক্তি নিজেও শুরুর দিকে ধরতে পারছেন না উনি আক্রান্ত । বার বার সতর্ক করার পরও আর ৮/১০ জনের মতই উনিও নির্বিকার ভাবে ঘুরে বেড়াচ্ছেন, চায়ের দোকানে বসছেন, আড্ডা দিচ্ছেন, বাজার করছেন, বাজার নিয়ে বাসায় যাচ্ছেন, পরিবারের সাথে বসে একত্রে খাওয়া দাওয়া করছেন, ছেলে মেয়েকে কাছে ডাকছেন, আদর করছেন, স্ত্রীর সাথে খোশগল্প করছেন, পাশের বাসার আত্মীয়, বন্ধু-বান্ধবদের Lockdown er খবরাখবর দিতে বাসায় বাসায় যাচ্ছেন, চা খাচ্ছেন! অত:পর যাদের সংস্পর্শে উনি গেলেন তারা আবার অমিত সাহসে আর দূর্বার গতিতে উনি যা যা করে গেলেন তাই তাই করলেন!! কেউ জানলই না কে কার মাধ্যমে আক্রান্ত হলেন!

আপনাদের সর্বোত ভাবে সতর্ক করা হচ্ছে। বুঝানোর জন্য মাইকিং, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, লিফলেট, সংবাদপত্র, সন্মুখ বক্তব্য, বাজার হাট সব যায়গায় উপস্থিত থেকে বার বার বলা হচ্ছে, সতর্ক করা হচ্ছে।

কিন্তু ফলাফল শূন্যই রয়ে গেল। আপনি ঘরে থাকতে পারেন না, বাইরে আপনাকে আসতেই হবে। আপনাকে আসতে নিষেধ করায় গালমন্দ করলেন, লকডাউনকে বুড়ো আঙ্গুল দেখালেন, যে যার মত চলতে লাগলেন! পুলিশ আপনার এলাকা ঘুরে চলে গেলেই নির্লজ্জের মত আবার বেরিয়ে আসলেন, সকলের চৌদ্দ গোষ্ঠী উদ্ধার করলেন। আর এত কিছু করে; যাবার বেলায় হয় কিছু নিয়ে গেলেন নাহয় অকাতরে বিলিয়ে গেলেন!!
সেই কিছু কি, সেটা জানেন?

#করোনা! #কোভিড-১৯!
আপনার এই দূরন্তপনার ফল হিসেবে আপনি খুব সহজেই আক্রমণের শিকার হলেন সেই অদৃশ্য মৃত্যূদূতের আর আক্রমণের ক্ষেত্রও তৈরী করলেন বিনা বাঁধায়!

সবচেয়ে ভয়ঙ্কর বিষয় হল আপনাদের ঘরে রাখার জন্য এবং আক্রান্ত না হবার জন্য যারা নিরলস ভাবে দিনরাত কাজ করছেন তাদেরকে তো বিপদে ফেললেনই, পাশাপাশি নিজের পরিবার, আত্মীয় স্বজন, বন্ধু-বান্ধব, সমাজ তথা পুরো দেশকেই বিপদে ফেলে দিলেন!

একটু ঠান্ডা মাথায় ভাবুন; কোথায় ছিলেন, কোথায় আছেন, কোথায় এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন!

দু:খের গল্পটা আরো ভয়ঙ্কর!
পূর্বের একজন আক্রান্ত ব্যক্তির সরাসরি সংস্পর্শে থাকায় উপসর্গ না থাকলেও কয়েকজনের নমুনা নিয়ে পরীক্ষার জন্য প্রেরণ করা হলো। পুলিশ বাসায় বাসায় গিয়ে হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করতে বলে এল। নমুনার রেজাল্ট না আসা পর্যন্ত ঘর থেকে বেরোতে নিষেধ করা হল। রেজাল্ট আসার পর দেখা গেল একজন করোনা পজিটিভ! রাতেই পুলিশ আর সাস্থ্য কর্মীরা রেজাল্ট জানাতে তার বাড়ি গেল। কিন্তু হায়! তিনিতো বাড়িতে নেই! আত্মীয়ের বাড়ি বেড়াতে গেছেন!!ভয়ঙ্কর! খুব ভয়ঙ্কর!!

সুবুদ্ধির উদয় হোক!
সংখ্যাটা আর বাড়তে না দেই!

সুদীপ্ত রায়
অতিরিক্ত পুলিশ সুপার,
জকিগঞ্জ সার্কেল, সিলেট।
০২.০৫.২০২০।

(লেখাটি সুদীপ্ত রায় এর ফেসবুক ওয়াল থেকে নেওয়া সংগ্রহ)

শেয়ার করুন...
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  


বিডি সিলেট নিউজ মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। © ২০১৭ - ২০২০
Design & Developed BY Cloud Service BD