রবিবার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ০৮:৩৯ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম ::
জকিগঞ্জের প্রথম উপজেলা চেয়ারম্যান কয়েস চৌধুরীর স্মরণ সভা ও দোয়া মাহফিল রায়হান হত্যা মামলায় আরও ১ পুলিশ সদস্য ৫ দিনের রিমান্ডে এডভোকেট নাসির উদ্দিন খানের নেতৃত্বে পূজামণ্ডপ পরিদর্শনে সিলেট জেলা আ’লীগ শাহাজালাল বিমান বন্দর থেকে কানাইঘাটের শহীদ গ্রেফতার রায়হান হত্যার মূল আসামী আকবর শিগগিরই গ্রেফতার: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সদর উপজেলায় ১১৬টি পূজা মণ্ডপে আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর ১৩টি চৌকস দল বাবর লস্কর শেখ রাসেল স্মৃতি ফাউন্ডেশনের’কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মনোনীত শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এখন সাম্প্রদায়িকসম্প্রীতির এক উজ্জল দৃষ্টান্ত:ডা.শিপলু এপেক্স ক্লাব অব সিলেট এর উদ্যোগে বৃক্ষরোপন কর্মসুচি সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের পূজামন্ডপ পরিদর্শন ব্যারিস্টার রফিক-উল হক এর মৃত্যুতে সাবেক শিক্ষামন্ত্রী’র শোক প্রকাশ আইনজীবী রফিক-উল হকের মৃত্যুতে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর শোক প্রবীণ আইনজীবী ব্যারিস্টার রফিক-উল-হকের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতির শোক বিশিষ্ট আইনজীবী ব্যারিস্টার রফিক-উল-হকের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক ব্যারিস্টার রফিক-উল হক আর নেই
cloudservicebd.com

ছাতকে প্রেমিক জুটি আটক

20200802 225711 - BD Sylhet News

ছাতক (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি:সুনামগঞ্জের ছাতকে পালিয়ে যাওয়া প্রেমিক জুটি দেড়মাস পর আটক করা হয়েছে। অপহরণের মামলার প্রেক্ষিতে ডিজিটাল পদ্ধতি ব্যবহার করে সিলেটের বালাগঞ্জ থানা পুলিশের সহযোগিতায় ছাতক থানা পুলিশের এসআই লিটন চন্দ্র রায়ের নেতৃত্বে শুক্রবার বিকেলে বালাগঞ্জ থানাধীন দেওয়ানবাজার ইউনিয়নের মাদরাসা বাজার মার্কেট কলোনীতে অভিযান পরিচালনা করে তাদের আটক করে থানায় নিয়ে আসে। আটককৃতরা হলেন, উপজেলার কালারুকা ইউনিয়নের খাইরগাঁও গ্রামের মৃত কলমধর আলীর পুত্র সিএনজি অটো-রিকশা চালক কামাল হোসেন (২৫) ও একই ইউনিয়নের করছখালী গ্রামের দুদু মিয়ার কন্যা, এলঙ্গি মডেল হাইস্কুলের ১০ম শ্রেণীর শিক্ষার্থী হুমায়রা বেগম। তার বয়স সাড়ে ১৬ বছর।

জানা যায়, মোবাইল ফোনের মাধ্যমে একে অপকে জানাশুনা থেকে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। এক পর্যায়ে দু’জন বিয়ে করে সংসার গড়তে গত ১৪ জুন রাতে অজানার উদ্দেশ্যে পাড়ি জমায়। পরদিন সিলেট আদালতে নোটারী পাবলিকের মাধ্যমে তারা বিয়ে করে স্বামী-স্ত্রী হিসেবে বসবাস করে আসছিল।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা থানা পুলিশের এসআই লিটন চন্দ্র রায় সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ভিকটিমের পিতা বাদী হয়ে গত ১৯ জুলাই ছাতক থানায় কামাল হোসেনসহ ৪জনকে অভিযুক্ত করে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনের ৭/৩০ ধারায় একটি মামলা নং-(২৫) দায়ের করেন। এর প্রেক্ষিতে ডিজিটাল পদ্ধতি ব্যবহার করে তাদেরকে আটক করা হয়েছে। শনিবার ভিকটিমকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। আর কামালকে অপহরণ মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে সুনামগঞ্জ আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, গত ১৪ জুন তারা নিখোঁজ হলেও পরে বিষয়টি স্থানীয় ভাবে নিস্পত্তির চেষ্টা করায় উদ্ধার কাজে বিলম্ব  হয়। এতে পুলিশের কোন দায়িত্ব অবহেলা ছিল।

শেয়ার করুন...
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  


বিডি সিলেট নিউজ মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। © ২০১৭ - ২০২০
Design & Developed BY Cloud Service BD