বৃহস্পতিবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২১, ১২:২০ অপরাহ্ন

শিরোনাম ::
আবরার হত্যায় জড়িত মুন্নার পরিবার বিএনপির রাজনীতিতে জড়িত! কিডনি রোগীরা কী খাবেন না? জনতার হাতে আটক হত্যা মামলার আসামিকে প্রাণে বাঁচাল পুলিশ! হবিগঞ্জে চাচির হাতে আড়াই মাসের ভাতিজা খুন! এক প্রবাসী ফেসবুক লাইভে এসে আত্মহত্যা, দেশে স্ত্রীর পরকীয়া সিলেটের সাইবার ট্রাইব্যুনালে ঝুমন দাশের জামিন বহাল এইচএসসি পরিক্ষা: পঞ্চম দিনে অনুপস্থিত ৩৭১৮ শাবি থেকে জাতিকে যোগ্য নেতৃত্ব উপহার দিতে চাই : উপাচার্য নাইজেরিয়ায় বাসে আগুন ধরিয়ে ৩০ যাত্রীকে হত্যা দোয়ারায় বিদেশি মদসহ আটক ১ সিলেটে পানিতে ডুবে প্রতিবন্ধী যুবতীর মৃত্যু এবার ‘ঘর’ থেকেও বহিষ্কার তথ্যপ্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ জাতির পিতার আদর্শে তরুণ প্রজন্মকে প্রস্তুত করতে যুবলীগকে আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর কিডনি রোগীরা কী খাবেন না? ‘যতোদিন বেঁচে থাকবো ততোদিন মানুষের জন্য কাজ করতে হবে’
cloudservicebd.com

লন্ডনে অগ্নিকান্ডে পরিবারের সবাই নিহত,ফোন করে বাঁচার শেষ আকুতি ছিল স্বামীর কাছে

Screenshot 20210918 013324 AndroVid - BD Sylhet News

বিডি সিলেট ডেস্ক:: দক্ষিন পূর্ব লণ্ডনের বেক্সলীহিথের হ্যামিলটন রোডের ফ্ল্যাটে আগুন লাগার পরই স্ত্রী নিরুবার কাছ থেকে ফোন কল পান স্বামী জোগান। তিনি এসময় কাজে ছিলেন। বউয়ের ফোন রিসিভ করে তিনি শুধু দুবার ‘ আগুন, আগুন’ আর্ত চিৎকার শুনতে পান। এরপরই ফোনের অপর পাশ নিশ্চুপ হয়ে যায়। ফোন কেটে যায়!

স্বামী বেপরোয়া হয়ে ছুটে আসেন, কিন্তু ততক্ষনে সব শেষ। পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস, এম্বুলেন্স সব আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়েছে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনতে। স্বামী জোগান আর ঢুকতে পারেন নি ফ্ল্যাটে। বাইরে চিৎকার করতে করতে ভেতরে শেষ হয়ে যায় দুই সন্তান, বউ আর শ্বাশুড়ীর প্রাণ।

মাত্র ৩ মাস আগে তারা এই নতুন ফ্ল্যাটে উঠেন। কিভাবে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে সেটা জানা যায়নি এখনো। পুলিশ তাদের তদন্তকাজ চালিয়ে যাচ্ছে। তবে ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী প্রতিবেশী স্কট জেমস বলেন, মনে হয় মূহূর্তের মধ্যে পুরো ফ্ল্যাটে আগুন ছড়িয়ে পড়ে! প্রচুর ধূয়া বের হতে থাকে যা রাস্তা পর্যন্ত চলে আসে। একজন পুরুষকে দেয়ালের পাশে পড়ে থাকতে দেখি!

জেমস আরো বলেন, গতকালই ( ঘটনার দিন সকালে ) এই পরিবারের সাথে আমার দেখা হয়, বাচ্চাগুলো জানালা দিয়ে তাকিয়ে ছিলো, মা ও বাচ্চাদের প্রতি আমি হাত নেড়ে সৌজন্যতা দেখাই, তারাও হেসে রিপ্লাই দেয়। সেদিন রাতেই তারা নাই হয়ে গেলো!

আরো একজন প্রতিবেশী লিং হ্যান বলেন, বাচ্চাদের চিৎকার শুনেছি আমি। এর অনেক পরে যখন আগুন নিয়ন্ত্রনে আনা হলো দেখলাম দুটো বাচ্চাকে বের করে আনা হলো, তাদেরকে এম্বুলেন্সে সিপিআর দেয়া হলো। তারপর শুনি পুরো পরিবার নেই!

এই অগ্নিকাণ্ডে নিহত সবাই শ্রীলংকান পরিবার। ১ বছরের কন্যা সন্তানের নাম শাসনা, ৪ বছরের ছেলের নাম তাবিশ, তাদের মায়ের নাম নিরুবা এবং অপর বয়স্ক নারী হচ্ছেন নিরুবার মা।

ঘটনার সময় বেচে যাওয়া ব্যাক্তি হচ্ছেন নিরুবার দুলাভাই। তিনি আগুন লাগার পরপরই প্রাণ বাঁচাতে জানালা দিয়ে লাফিয়ে নিচে পড়েন। এসময় তার দুটি পা আঘাতপ্রাপ্ত হয়।

নিরুবার স্বামী জোগান থাংঘাবাডিভাল এসময় কাজে ছিলেন। আগুন লাগার খবর পেয়ে তিনি কাজ থেকে এসে উম্মাদের মতে চিৎকার করতে থাকেন পরিবারকে বাঁচাতে । সবকিছু মিলিয়ে একটি ভয়ংকর পরিবেশের সৃষ্টি হয়। এর আগে ১৮ নভেম্বর , বৃহ:স্পতিবার রাত সাড়ে আটটার দিকে সাউথ ইস্ট লন্ডনের বেক্সলিহিথের হ্যামিলটন রোডে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে দুই জন শিশু ও দুই জন নারী প্রাণ হারিয়েছেন। লন্ডন ফায়ার ব্রিগেদের দেওয়া তথ্যমতে, ছয়টি ফায়ার ইঞ্জিন ও ৪০ জন ফায়ার ব্রিগেড কর্মী আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হলেও ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারিয়েছে চার জন। ফায়ার ব্রিগেডের পক্ষ থেকে আরও বলা হয়েছে, ফায়ার ব্রিগেড আসার আগেই বাড়িটি থেকে বের হতে পেরেছিলো একজন।

শেয়ার করুন...
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  


বিডি সিলেট নিউজ মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। © ২০২১
Design & Developed BY Cloud Service BD