বৃহস্পতিবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২১, ০৩:৪০ অপরাহ্ন

শিরোনাম ::
ছয় মাস ঢাকার রানওয়ে রাতে বন্ধ, জরুরি অবতরণ সিলেটে আবরার হত্যায় জড়িত মুন্নার পরিবার বিএনপির রাজনীতিতে জড়িত! কিডনি রোগীরা কী খাবেন না? জনতার হাতে আটক হত্যা মামলার আসামিকে প্রাণে বাঁচাল পুলিশ! হবিগঞ্জে চাচির হাতে আড়াই মাসের ভাতিজা খুন! এক প্রবাসী ফেসবুক লাইভে এসে আত্মহত্যা, দেশে স্ত্রীর পরকীয়া সিলেটের সাইবার ট্রাইব্যুনালে ঝুমন দাশের জামিন বহাল এইচএসসি পরিক্ষা: পঞ্চম দিনে অনুপস্থিত ৩৭১৮ শাবি থেকে জাতিকে যোগ্য নেতৃত্ব উপহার দিতে চাই : উপাচার্য নাইজেরিয়ায় বাসে আগুন ধরিয়ে ৩০ যাত্রীকে হত্যা দোয়ারায় বিদেশি মদসহ আটক ১ সিলেটে পানিতে ডুবে প্রতিবন্ধী যুবতীর মৃত্যু এবার ‘ঘর’ থেকেও বহিষ্কার তথ্যপ্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ জাতির পিতার আদর্শে তরুণ প্রজন্মকে প্রস্তুত করতে যুবলীগকে আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর কিডনি রোগীরা কী খাবেন না?
cloudservicebd.com

প্রশ্নফাঁসে প্রিন্টিং প্রেসের কর্মীসহ গ্রেপ্তার ৩

samakal - BD Sylhet News

বিডি সিলেট ডেস্ক :: রাজধানীর অদূরে আশুলিয়ায় আহসানিয়া মিশনের প্রিন্টিং প্রেস কর্তৃপক্ষের নজরদারি না থাকার সুযোগ নিয়ে আহছানউল্লাহ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ও প্রিন্টিং প্রেসের কর্মচারীদের সিন্ডিকেট পাঁচ ব্যাংকে নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস করেছে বলে জানিয়েছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

সর্বশেষ পাঁচ ব্যাংকের প্রশ্নপত্র ছাড়াও আরও অনেক পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ছাপা হত সেখানে।

পাঁচ ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসে আরও তিন জনকে গ্রেপ্তার করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। তারা প্রত্যেকেই আহসানিয়া মিশনের প্রিন্টিং প্রেসের কর্মী।

গ্রেপ্তার তিনজন হলেন- আহছানউল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের টেকনিশিয়ান ল্যাব সহকারী পারভেজ মিয়া, আহসানিয়া প্রিন্টিং প্রেসের অফিস সহকারী (পিয়ন) দেলোয়ার হোসেন ও কাটিং মাস্টার রবিউল আওয়াল।

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের তেজগাঁও বিভাগের ডিসি ওয়াহিদুল ইসলাম জানান, ওয়াহিদুল ইসলাম জানান, বুধবার ওই তিনজনকে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা প্রশ্নপত্র ফাঁসে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন। বৃহস্পতিবার আদালতে হাজির করা হলে তারা স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

পাঁচ ব্যাংকের পরীক্ষার দুইদিন আগে প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়। পিয়ন দেলোয়ার পরীক্ষার আগে প্রশ্নপত্র বের করার অনুরোধ করে প্রেসের কাটিং মাস্টার রবিউলকে। পরে সে ল্যাব সহকারী পারভেজ মিয়ার হাতে প্রশ্নপত্র তুলে দেয়। ওই সময়ে তার সঙ্গে আহসানউল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের টেকনিশিয়ান মুক্তারুজ্জামানও ছিল। এই মুক্তারুজ্জামানকে আগেই গ্রেপ্তার করা হয়।

প্রশ্নপত্র ফাঁস করে দেলোয়ার ও রবিউল এক লাখ টাকা পেয়েছে বলে জানান ডিবি কর্মকর্তা ওয়াহিদুল।

ডিবির এই কর্মকর্তা বলেন, জবানবন্দিতে ওই তিনজন প্রশ্নপত্র ফাঁসের বিস্তারিত তথ্য দিয়েছে। তাদের কাছ থেকে পাওয়া তথ্য যাচাই করা হচ্ছে। এর আগে পাঁচ ব্যাংকের প্রশ্নপত্র ফাঁসে জড়িত এই চক্রের আরও ৯ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

বাংলাদেশ ব্যাংকের ব্যাংকার্স সিলেকশন কমিটির আওতায় গত ৬ নভেম্বর আহছানউল্লা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের দায়িত্বে সোনালী, রূপালী, জনতা, অগ্রণী ও বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংকের এক হাজার ৫১১টি পদে জনবল নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

তবে এই পাঁচ ব্যাংকের অফিসার (ক্যাশ) পদে নিয়োগের প্রিলিমিনারি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়েছে বলে অভিযোগ ওঠে। ডিবি পুলিশও ফাঁস চক্রের ৯ জনকে গ্রেপ্তার করে সংবাদ সম্মেলনে প্রশ্নপত্র ফাঁসের কথা জানায়। এরপরই ওই পরীক্ষা বাতিল করা হয়। সুত্র: সমকাল

শেয়ার করুন...
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  


বিডি সিলেট নিউজ মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। © ২০২১
Design & Developed BY Cloud Service BD