মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ০২:৫৯ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম ::
ম্যারাডোনার মৃত্যুতে ‘ভাত খাচ্ছেন না’ নাটোরের বাবু সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের নবনিযুক্ত প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসারের দায়িত্ব গ্রহন আয়কর রিটার্ন দাখিলের সময় বাড়লো এক মাস মহান বিজয়ের মাস শুরু আজ বড়লেখায় যুবলীগের বিক্ষোভ মিছিল বিকাশ প্রতারকের সঙ্গে প্রেম করে টাকা উদ্ধার করলেন কলেজছাত্রী কেনিয়ায়‘মৃত’ব্যক্তির চিৎকারে ভয়ে পালালেন মর্গের কর্মীরা! সিলেটে বৃহস্পতিবার ৮ ঘন্টা থাকবে না গ্যাস সিলেটে জেলা যুবলীগের বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ মুজিব বর্ষে বড়লেখার দৌলতপুর মাদ্রাসায় মাস্ক কোরআন ও ফলজ গাছ বিতরণ নিসচা জুড়ী উপজেলা শাখার কমিটির অনুমোদন,বড়লেখা উপজেলা শাখার শুভেচ্ছা ফেনীতে নিজ হাতে সন্তানের মাথা ফাটিয়ে কোলে নিয়ে ভিক্ষা! ছাতকে উত্যেক্তকারিদের হামলায় নারী আহত: থানায় অভিযোগ সেনাপ্রধান জেনারেল আজিজের পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন হাজী সেলিমের স্ত্রীর ইন্তেকাল
cloudservicebd.com

মৌলভীবাজারে‘লাম্পি স্কিন’ভাইরাস আক্রান্ত হচ্ছে গরু :মারা গেছে ৫০টি

20200623 170234 - BD Sylhet News

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি::মৌলভীবাজার গরুর শরীরে  হঠাৎ দেখা দিয়েছে লাম্পি স্কিনেএর কারনে পড়ে যাচ্ছে গরুর লোম।গরুর শরীরের তাপমাত্রাও বেশি। কিছু খেতেও চাচ্ছে না। মুখ এবং নাক দিয়ে লালা বের হচ্ছে। গ্রামের পশু ডাক্তারের মাধ্যমে বেশ কিছু দিন চিকিৎসা করার পরেও কমছে না। উল্টো গরুর শরীরের বিভিন্ন স্থানে পচন ধরেছে।

এক মাস পর চিকিৎসার জন্য জেলা পশু হাসপাতালে যোগাযোগ করে জানতে পারেন এই রোগের নাম ‘লাম্পি স্কিন’। রোগ শনাক্ত করতে দেরি হওয়ায় এখন গরু বাঁচিয়ে রাখাই অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে।

আবদুল বাছিতের গরুর মতো জেলায় ৬ হাজার গরু ‘লাম্পি স্কিন’ নামক এই রোগে আক্রান্ত। মৌলভীবাজার জেলার বিভিন্ন এলাকায় খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত বছর থেকে এই রোগে গরু আক্রান্ত হচ্ছে। এর আগে এই রোগ কৃষকের বা খামারিদের চোখে পড়েনি।

লাম্পি স্কিন নামক রোগে আক্রান্ত হয়ে বিভিন্ন এলাকায় কয়েকটি গরু মারা যাওয়া খবর পাওয়া গেছে।

এক বছর আগে থেকে এই রোগ এলেও গত প্রায় ৩-৪ মাস ধরে জেলার ৭টি উপজেলায় এ রোগ ছড়িয়েছে ব্যাপকভাবে। এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে ৬ হাজার ১১০টি গরু।

,মৌলভীবাজার জেলা প্রাণীসম্পদ কর্মকর্তা,  ডাঃ মোঃ মাছুদার রহমান সরকার  বলেন,জেলায় সর্বশেষ পরিসংখ্যন অনুযায়ী গবাদি পশুর সংখ্যা ৪ লাখ ৮৫ হাজার। সরকারি হিসেব মতে আক্রান্তের সংখ্যা সাড়ে ৬ হাজার। আর মারা গেছে গত ১৫ দিনে ৫০টি গবাদিপশু।

প্রাণিসম্পদ দপ্তর বলছে জনবল ও বিভিন্ন ধরনের ঔষধ সংকটের কথা। লাম্পি স্কিন নামীয় ভাইরানের কোন স্থায়ী চিকিৎসা নেই। এ জন্য গবাদিপশুর আবাসস্থল পরিস্কার পরিচন্ন রাখা সহ লিফলেট বিতরণ করে ব্যাপক প্রচারণা চালানো হচ্ছে।

স্থানীয় কিষান-কিষানি ও ক্ষুদ্র খামারিরা মনে করেন লাম্পি স্কিন রোগে আক্রান্তের সংখ্যা যে হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে। দ্রুত এর চিকিৎসা সহ প্রতিষেধক সংগ্রহ করে গবাদি পশুকে না দেয়া গেলে পশু সম্পদের বড় ধরনের ক্ষতির সম্মুখিন হতে হবে।

এখন পর্যন্ত মারা গেছে ৫০টি। তার মধ্যে কুলাউড়ায় ১০টি, শ্রীমঙ্গলে ৭টি এবং জুড়ীতে ৩টি।

শেয়ার করুন...
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  


বিডি সিলেট নিউজ মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। © ২০১৭ - ২০২০
Design & Developed BY Cloud Service BD