বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ০২:১১ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম ::
আগামী বছরের এসএসসি ফেব্রুয়ারির শুরুতে হচ্ছে না : শিক্ষামন্ত্রী ২০২২ সালে জাপানি বিনিয়োগের নতুন ঢেউয়ের আশা মোমেনের মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশকে আরও ৩৫ লাখ ফাইজার ভ্যাকসিন দান করেছে ট্যুরিজম ক্লাবের সাদা পাথর পর্যটনস্পট পরিচ্ছন্নতা ক্যাম্পেইন সম্পন্ন ওসমানীনগরে দুই সন্তানের জননীর আত্মহত্যা ছাতকে ইউপি নির্বাচনে ১০ ইউনিয়নে প্রতিক বরাদ্দ আজ কমলগঞ্জে গলাকাটা অবস্থায় বৃদ্ধের মরদেহ উদ্ধার কাবুলে নারীদের বিক্ষোভ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্প পুরস্কার পাচ্ছে ২৩ প্রতিষ্ঠান গোশতের ঘটনায় তালাক দেয়া সেই নববধূকে আবারো বিয়ে ২৮ অক্টোবর কেন ফেসবুক অ্যাকাউন্ট বন্ধ হবে ‘মডেল’ তৈরির নামে বিবস্ত্র ছবি তুলে টাকা আদায়, তরুণী গ্রেফতার শিশুরাই হতে পারে জলবায়ু পরিবর্তনের নিয়ামক : স্পিকার মাদকের নিত্যনতুন রুট, বাংলাদেশ-ভারত বৈঠক পাটুরিয়ায় ফেরী দূর্ঘটনায় ৭ সদস্যের তদন্ত কমিটি
cloudservicebd.com

সিলেট নগরী থেকে ২২ দিন ধরে মামলার বাদী নিখোঁজ, থানায় জিডি

GD NEWS - BD Sylhet News

বিডি সিলেট ডেস্কঃ

সিলেট সিটি কর্পোরেশনের ৮নং ওয়ার্ডের করের পাড়া এলাকার থেকে ২২ দিন ধরে নিখোঁজ রয়েছেন জালালাবাদ থানা দায়ের করা মামলার (নং- ০৫, তাং- ০৫/০২/২০২১ইং) বাদী দুলাল চন্দ্র দাস (৫২)। তিনি করের পাড়ার মোহনা ৬৯নং বাসার বাসিন্দা মৃত প্রভাত চন্দ্র দাসের ছেলে। তার গ্রামের বাড়ি হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলার বড়শাখোয়া গ্রামে। এব্যাপারে শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর) জালালাবাদ থানায় সাধারণ ডায়রী করেন তার ছোট ভাই বিশ্বজিৎ চন্দ্র দাস। জিডি নং ৭৫৫।

জিডি সূত্রে জানা যায়, গত রোববার (১২ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টায় ঘর থেকে বের হয়ে দুলাল চন্দ্র দাস আর ফিরে আসেননি। সম্ভাব্য সকল জায়গা ও আত্মীয় স্বজনদের বাড়িতে খোঁজ নিয়েও তার কোন সন্ধান পাওয়া যায় নি। তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটিও (০১৭১৬ ৭০৬০৩৪) বন্ধ রয়েছে। হারিয়ে যাওয়ার সময় তার পরনে ছিল সাদা শার্ট ও চেক লুঙ্গি। গায়ের রং ফর্সা, শারীরিক গঠন হালকাপাতলা, মুখমন্ডল গোলাকার। সে সিলেটের আঞ্চলিক ভাষায় কথা বলে।

এব্যাপারে নিখোঁজ হওয়া দুলাল চন্দ্র দাসের ভাই বিশ্বজিৎ চন্দ্র দাশ জানান, আমার ভাই দুলালের ছেলে রাজু চন্দ্র দাস মোবাইল সার্ভিসিং এর কাজ করে। তার এক বন্ধু নষ্ট মোবাইল নিয়ে তার কাছে সার্ভিসিং এর জন্য দেয়। সার্ভিসিং বাবদ তার বন্ধুর কাছে ২’শ টাকা পাওনা রয়ে যায়। গত ৪ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় বন্ধুর কাছে পাওনা চাওয়ায় সে ক্ষিপ্ত হয়ে রাজু উপর হামলা চালায়। এতে রাজু রক্তাক্ত জখম হয়। এ ঘটনায় ৫ ফেব্রুয়ারি তারিখে আমার ভাই রাজুর পিতা দুলাল চন্দ্র দাস বাদী হয়ে জালালাবাদ থানার দুসকী গ্রামের গোপী রঞ্জন রায়ের ছেলে সজিব (২২) ও মৃত অরুণ রায়ের ছেলে রতন রায় (২৫)-কে আসামী করে জালালাবাদ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলায় একজন আসামী  কে গ্রেফতার করে পুলিশ। অন্য আসামী এখনও পলাতক রয়েছে। মামলা তুলে নিতে আমার ভাই দুলাল চন্দ্র দাস ও পরিবারের সকল সদস্যদের নানান ভয়ভীতি প্রদর্শন করে আসছে আসামী পক্ষের লোকজন। আমার ধারণা উক্ত আসামী পক্ষের লোকেরাই আমার ভাইকে গুম করে ফেলেছে। আমার ভাইকে ফিরে পেতে প্রশাসনের উর্ধ্বতন মহলের সহযোগিতা কামনা করছি।

শেয়ার করুন...
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  


বিডি সিলেট নিউজ মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। © ২০২১
Design & Developed BY Cloud Service BD