বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১, ১০:২৪ অপরাহ্ন

শিরোনাম ::
ভুয়া ভিডিও আপলোড-শেয়ার-মন্তব্যে সাবধান! বাংলাদেশে একই সাথে তিন ধর্মের উৎসব উদযাপিত চুনারুঘাটে ভারতীয় মদসহ আটক ১ সুনামগঞ্জে নৌকা থেকে পড়ে শিশুর মুত্যু ওয়াইফাই সংযোগ পাবে দেশের সব প্রাথমিক বিদ্যালয় সিলেটে উন্নয়নের নামে অর্ধশত ছায়াবৃক্ষ কাটলো সিসিক লন্ডনে বাসে ছুরিকাঘাতে ৩ জন আহত সিলেট আসছেন চারদিনের সফরে সাবেক শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এমপি হোটেলে অসামাজিক কার্যকলাপ, নারী-পুরুষসহ গ্রেফতার ৯ শনিবার সিলেটের যেসব এলাকায় ১০ ঘন্টা থাকবে না বিদ্যুৎ সুপার টুয়েলভে উঠবে কী বাংলাদেশ? সমীকরণ যা বলছে ধর্মীয় ও পার্থিব জীবনে মহানবী (সা.)- এর শিক্ষা সমগ্র মানবজাতির জন্য অনুসরণীয় : প্রধানমন্ত্রী ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) উপলক্ষে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) আজ ফেসবুকে ‘যতন সাহা হত্যাকাণ্ড’ নামে ছড়ানো ভিডিওটি মিথ্যা, গুজব
cloudservicebd.com

চোর সন্দেহে মাদরাসাছাত্রকে খুঁটির সঙ্গে বেঁধে নির্যাতন

FB IMG 1632082077154 - BD Sylhet News

বিডি সিলেট ডেস্কঃ

গাজীপুরে চোর সন্দেহে এক মাদরাসাছাত্রকে (৯) খুঁটির সঙ্গে বেঁধে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। রোববার (১৯ সেপ্টেম্বর) সকালে গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার চন্দ্রা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

ওই শিশুর বাবা ও মা উপজেলার ডাইনকিনি এলাকায় ভাড়া থেকে কারখানায় কাজ করেন। সে গ্রামের বাড়িতে থেকে স্থানীয় একটি মাদরাসায় দ্বিতীয় শ্রেণিতে পড়ে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, শিশুর বাবা ওয়ালটন কারখানায় এবং মা একটি পোশাক তৈরির কারখানায় কাজ করেন। শিশুটি বাড়িতে থেকে লেখাপড়া করলেও গত পাঁচ-ছয় মাস ধরে তাদের সঙ্গে থাকে। রোববার সকালে শিশুর বাবা-মা তাদের কর্মস্থলে গেলে সে চন্দ্রা এলাকায় ঘুরতে বের হয়। একপর্যায়ে ওই শিশু রঞ্জিত মেডিকেল হলে প্রবেশ করলে পাশের আনোয়ার হোসেন নামের আরেক ব্যবসায়ী তাকে চোর সন্দেহে আটক করেন। পরে আনোয়ার ও মিছির কুমার মিলে তাকে খুঁটির সঙ্গে বেঁধে মারধর করেন। খবর পেয়ে পুলিশ ওই শিশুকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। পরে ওই পুলিশ কর্মকর্তা শিশুটির মাকে খবর দিয়ে তার কাছে বুঝিয়ে দেন।

এ বিষয়ে শিশুটির মা মুঠোফোনে বলেন, মিথ্যা চুরির অভিযোগে আমার ছেলেকে বেঁধে রেখে মারধর করা হয়েছে। আমি এর বিচার চাই।

নির্যাতনের বিষয়ে জানতে চাইলে অভিযুক্ত ভাই ভাই হার্ডওয়ার দোকানের মালিক আনোয়ার হোসেন জানান, না বলে সে দোকানে ঢুকেছিল। সুযোগ পেলে চুরি করতো।

অভিযুক্ত রঞ্জিত মেডিকেল হলের মালিক মিছির কুমার বলেন, আমি পানি আনতে গিয়েছিলাম। এসে শুনি দোকানের ছেলেটি আমার ক্যাশে হাত দেয়। কিন্তু টাকা চুরি করতে পারেনি। বিষয়টি টের পেয়ে পাশের দোকানদার তাকে আটক করে বেঁধে রাখে। কয়েকটি চর-থাপ্পড় দেওয়া হয়েছে। তবে মারধর করা হয়নি।

কালিয়াকৈর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সুকান্ত বিশ্বাস জানান, ঘটনাস্থলে গিয়ে শিশুটিকে বাঁধা পাইনি বা মারধর করতেও দেখা যায়নি। শিশুটির সঙ্গে অন্যায়ভাবে কিছু হয়ে থাকলে তার জন্য আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সূত্র – জাগো নিউজ

শেয়ার করুন...
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  


বিডি সিলেট নিউজ মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। © ২০২১
Design & Developed BY Cloud Service BD