শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:৩২ অপরাহ্ন

শিরোনাম ::
বড়লেখায় নির্মাণাধীন মসজিদে নিসচা’র নগদ অর্থ প্রদান মাইক এন্ড সাউন্ড সিস্টেম মালিক কল্যাণ সমিতি সিলেট জেলার নির্বাচন অনুষ্ঠিত বিশেষ ট্রাইব্যুনালে মুনির তপন জুয়েল হত্যার বিচার দাবী পূর্ণিমার হাত-পা বাঁধা বিবস্ত্র লাশ উদ্ধার সন্তান কোলে নিয়েই শিক্ষার্থীদের পড়াচ্ছেন মা! ফেসবুকে প্রশংসায় ভাসছেন তিন শিক্ষক করোনা পজিটিভ, স্কুল বন্ধ ঘোষণা সাড়ে তিন হাজার মাদক কারবারি রয়েছে ঢাকায় গরু চুরি কেন্দ্র করে মাদাগাস্কারে সংঘর্ষে নিহত ৪৬ কোভিড একসময় সাধারণ ঠাণ্ডা-জ্বরে পরিণত হবে: সারাহ গিলবার্ট ভারতে আদালতকক্ষে গোলাগুলিতে নিহত ৪ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পদে ৮ কর্মকর্তার পদায়ন বালাগঞ্জে কামরুল হত্যা মামলার পলাতক দুই আসামি ঢাকা থেকে গ্রেফতার মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বের প্রশংসা জাতিসংঘ মহাসচিবের দোয়ারাবাজারের মাদ্রাসা ছাত্র নিখোঁজ ছাতকে ছুরিকাঘাতে গুরুতর আহত শিক্ষক হাসপাতালে ভর্তি: উপ‌জেলা জুড়ে নিন্দার ঝড়
cloudservicebd.com

দু:সময়ের অক্সিজেন মানবিক সফি

FB IMG 1628763587849 - BD Sylhet News

বিডি সিলেট নিউজ ডেস্কঃ সিলেট নগরীর শেখঘাট সুখের হাসি ক্লিনিকে গত সোমবার গণটিকার ডিউটিতে ছিলেন পুলিশ সদস্য নায়েক সফি আহমেদ। বেলা ১টায় শেষ হয়ে যায় তাঁর ডিউটি। পুলিশ লাইনে ঢোকার সময় ওসমানী হাসপাতাল থেকে এক মেয়ে (রোগীর স্বজন) তাঁকে ফোন দিয়ে কান্নাকাটি শুরু করেন। একটু পর এক ছেলেও ফোন করেন। তাঁদের দুজনের রোগীরই অক্সিজেন প্রয়োজন। রিকশায় গেলে অনেক সময় লাগবে। তাই পুলিশ লাইন থেকে মোটরবাইক নিয়ে একটি অক্সিজেন সিলিন্ডার নিজের পিঠে এবং আরেকটি বাইকের পাশে বেঁধে হাসপাতালে ছোটেন সফি। হাসপাতালে গিয়ে নিজেই সিলিন্ডারগুলো লাগিয়ে দেন।

২৯ বছরের যুবক নায়েক মো. সফি আহমেদ বর্তমানে সিলেট মহানগর পুলিশের মিডিয়া ও কমিউনিটি সার্ভিস বিভাগে কর্মরত। দেশে করোনা সংক্রমণের শুরু থেকে নিম্নবিত্ত, মধ্যবিত্ত, অসহায় হয়ে পড়া শিক্ষার্থী ও হতদরিদ্র মানুষদের সাহায্য শুরু করেন তিনি। কখনো চাল, ডাল, নুন, তেল দিয়ে। কখনো রান্না করা খাবার দিয়ে। কখনো রক্ত দিয়ে, কখনো অক্সিজেন সিলিন্ডার দিয়ে আবার কখনো প্লাজমা দিয়ে। ২০২০ সালের ২৬ মার্চ থেকে শুরু করে এখন পর্যন্ত করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় নিজের পেশাগত দায়িত্বের পাশাপাশি তিনি এসব সেবামূলক কাজ করে যাচ্ছেন মানুষের জন্য। তার প্রচেষ্টায় গড়ে উঠেছে ‘মানবিক টিম সিলেট’ নামে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন।

নায়েক মো. সফি আহমেদ বলেন, ‘ওসমানী হাসপাতালে ছয়–সাতজন রোগী আছেন, যাঁদের আমি সকাল–বিকেল অক্সিজেন সিলিন্ডার দিয়ে সাহায্য করি। সবাই আইসিইউর রোগী। প্রতিদিন প্রায় ৫০টি অক্সিজেন সিলিন্ডারের জন্য কল আসে। আমরা ২০টা ম্যানেজ করে দিতে পারি। রাত ৩টা পর্যন্ত কল আসে। আমি আমার নিজের বাইক, একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশা ও বন্ধুবান্ধব যারা রাতে ফ্রি থাকে তাদের বাইক ব্যবহার করে আমার টিমের সদস্যদের মাধ্যমেও অক্সিজেন সিলিন্ডার সরবরাহ করি।’

সফি জানান, খাবারসামগ্রী বিতরণ ছাড়াও করোনায় আক্রান্তদের প্লাজমা ও রক্ত দেওয়া, মৃতদের দাফন-কাফন, অসহায় শিক্ষার্থীদের খরচ বহন, আবার বিনা খরচে ওষুধ এবং নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্র বাসাবাড়ি অথবা হাসপাতালে পৌঁছে দেওয়ারও কাজ করছেন মানবিক টিম সিলেটের সদস্যরা। এসব কার্যক্রমের প্রধান সমন্বয়ক হিসেবে কাজ করেন তিনি।

সফি বলেন, গত বছর করোনা মহামারি শুরু হলে কাছ থেকে মানুষের কষ্ট–দুর্দশা দেখেছেন। বন্ধুবান্ধবের কাছ থেকে স্বজনদের আর্থিক সংকটের কথা শুনেছেন। তাতে তিনি বিচলিত হন। তখন চিন্তা করেন, নিজের সাধ্য অনুযায়ী মানুষকে সাহায্য করবেন। তাই নিজের বেতন–বোনাসের টাকা দিয়ে করেন।

শেয়ার করুন...
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  


বিডি সিলেট নিউজ মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। © ২০২১
Design & Developed BY Cloud Service BD