মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:১৪ অপরাহ্ন

শিরোনাম ::
অনিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল বন্ধের প্রক্রিয়া স্থগিত – ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন পথশিশুদের নিয়ে উদযাপন করলেন পুনাক সভানেত্রী সিলেট মহানগর আ.লীগের উদ্যোগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন পালিত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ব্যতিক্রমী জন্মদিন পালন করেছে দেওয়ান ফরিদ গাজী স্মৃতি সংসদ প্রধানমন্ত্রীর ৭৫তম জন্মদিনে সিলেট জেলা যুবলীগের দোয়া মাহফিল চলতি বছরও জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষা হচ্ছে না : শিক্ষামন্ত্রী সিলেট জেলা আ.লীগ কর্তৃক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন পালিত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫ তম জন্মদিন পালন করেছে বিয়ানীবাজার উপজেলা আওয়ামী লীগ হৃদরোগে প্রাণ গেল ২১ কোটির সুলতানের! পা ভেঙে লোকালয়ে বিলুপ্ত বাজপাখি বানের পানি ঠেলে সন্তানকে নিয়ে পোলিও টিকাকেন্দ্রে বাবা! মুফতি কাজী ইব্রাহিম আটক ৬ দফা দাবিতে কোথায় যাবেন রাইড শেয়ারিং গ্রুপ সিলেট’র মানববন্ধন দেশে পৌঁছেছে ফাইজারের আরও ২৫ লাখ টিকা তেলের সংকটে অচল ব্রিটেন, সেনাবাহিনী ডাকার কথা ভাবছে সরকার
cloudservicebd.com

ছাতকে গ্রাহকদের বীমার টাকা হাতিয়ে নিয়ে উধাও হোমল্যান্ড লাইফ ইন্স্যুরেন্স

20210705 163034 - BD Sylhet News

ছাতক (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি::সুনামগঞ্জের ছাতকে বীমার মেয়াদ পূর্ণ হলেও গ্রাহকদের টাকা হাতিয়ে নিয়ে উধাও হোমল্যান্ড লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানী লিমিটেড ছাতক সার্ভিসিং সেন্টার কর্তৃপক্ষ।

গ্রাহকরা তাদের কষ্টার্জিত টাকা তিল তিল করে জমিয়ে বীমার প্রিমিয়াম পরিশোধ করে মেয়াদ পূর্ণ করার পরও টাকা দিতে তালবাহানা করছে অসাধু বীমা কর্মকর্তারা।

ভুক্তভোগী গ্রাহক সূত্রে জানা গেছে, গত কয়েক মাস ধরে ছাতকের অফিস তালাবন্ধ
বৃহস্পতিবার দুপুরে ছাতক শহরের ট্রাফিক পয়েন্টে মেইন রোডস্থ হোমল্যান্ড লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড ছাতক সার্ভিসিং সেন্টারে সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ১২ থেকে ১৫ জন পুরুষ/মহিলা গ্রাহক তাদের মেয়াদ উত্তীর্ণ টাকা আদায়ে অফিসে এসে হট্টগোল করছে।

গ্রাহদের সাথে কথা বলে জানা যায়, তাদের অনেকের বীমার মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়েছে কারো ১২ বা কারো ১০ বছর মেয়াদী। বহুবার অফিসে আসলেও গ্রাহকগণ সেন্টারের ম্যানেজার পাচ্ছেন না।

দক্ষিণ খুরমা ইউনিয়নের ভুইগাঁও গ্রামের হুসাইন আহমদ বলেন, আমি ২০০৬ সালে একটা ও আরেকটি ২০১৪ সালে বীমা করেছি। একটির মেয়াদ পূর্ণ হয়েছে। এর জন্য এ নিয়ে আমি ১৭ বার অফিসে এসেছি কিন্তু তারা কিছুই বলছে না। একেকবার একেকরকম কথা বলে আমাকে বিদায় করে দেয়।

নাম না যানা এক বৃদ্ধা বলেন, ২০০৮ সালে বীমা করেছি। আমার স্বামী নাই আনেক কষ্ট করে হাস-মুরগী-গরু পেলে টাকা জোগার করে বীমার টাকা দিয়েছি এখন অফিসের সিঁড়ি বাইতে বাইতে জীবন শেষ।

এদিকে অফিসে দায়িত্বরত অফিস সহকারী এবং ম্যানেজার এর সাথে মোবাইল ফোনে কোনভাবেই যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

শেয়ার করুন...
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  


বিডি সিলেট নিউজ মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। © ২০২১
Design & Developed BY Cloud Service BD