মঙ্গলবার, ১৫ জুন ২০২১, ০১:০৮ অপরাহ্ন

শিরোনাম ::
আজ সাবেক মেয়র কামরানের ১ম মৃত্যুবার্ষিকীতে আ.লীগ ও পরিবারের পক্ষ থেকে নানা কর্মসূচি গ্রহণ সাবেক মেয়র কামরানের ১ম মৃত্যুবার্ষিকী আজ,এখনো তিনি মানুষের মনে জনতার কামরান সাবেক মেয়র কামরানের ১ম মৃত্যু বার্ষিকীতে সিলেট জেলা আ.লীগের কর্মসূচি সিলেট ৩ আসনকে নান্দনিক রূপে রূপান্তর করবো: হাবিব বিয়ানীবাজারে সিএনজি অটোরিকশার ধাক্কায় যুবক নিহত বিমান বাহিনী প্রধানকে এয়ার মার্শাল র‌্যাঙ্ক ব্যাজ পরানো হয়েছে সাবেক মেয়র কামরানের মৃত্যুবার্ষিকীতে পরিবারের বিভিন্ন কর্মসূচী গ্রহণ সিলেটে ১০টি ঘুমের ট্যাবলেট খাইয়ে আইনজীবী আনোয়ারকে হত্যা করেন স্ত্রী বিয়ানীবাজার থানার খসিরববন্দে বাড়ির সামনে থেকে অপহৃত মেয়েটি উদ্ধার সিলেট সীমান্তে ৪৮ বিজিবি’র ১৪৯ পরিবারকে খাদ্য সহায়াতা প্রদান সাবেক মেয়র কামরানের ১ম মৃত্যুবার্ষিকীতে সিলেট মহানগর আ.লীগের কর্মসূচী সাবেক শিক্ষামন্ত্রী নাহিদ এমপি’র প্রচেষ্টায় চারখাইয়ে হাইওয়ে থানা হচ্ছে শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রতি সাধারন মানুষ সন্তুুষ্ঠ – শফিউল আলম নাদেল নিসচা’র কেন্দ্রীয় সহ সাংঠনিক সম্পাদক মিশুর সাথে বিয়ানীবাজার শাখার মতবিনিময় সভা সিলেট ৩ আসনের নৌকার মাঝি হাবিবকে ফুল দিয়ে বরণ করলেন এড.নাসির উদ্দিন খান
cloudservicebd.com

গোলাপগঞ্জ ও বিয়ানীবাজার উপজেলা আ.লীগ : প্রশংসিত লুৎফুর-নাসিরের বিচক্ষণতা

20210607 015022 - BD Sylhet News

বিডি সিলেট :: স্বস্তির খবরই বটে! গোলাপগঞ্জ ও বিয়ানীবাজার উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটি অনুমোদন দিয়েছে সিলেট জেলা আওয়ামী লীগ।

স্বস্তির কারণ,নানা চড়াই উৎরাই পেরোতে হয়েছে জেলা নেতৃবৃন্দকে। আর এক্ষেত্রে দারুণ রাজনৈতিক দক্ষতা, বিচক্ষনতা বা মুন্সিয়ানার পরিচয় দিয়েছেন সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, সিলেট জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট লুৎফুর রহমান এবং সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট নাসির উদ্দিন খান।

সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের বিভিন্ন উপজেলার কমিটি নিয়ে এমনিতেই নানা সময়ে কিছুটা জটিলতা সৃষ্টি হয়। কারণ, ত্যাগী নেতাকর্মীর সংখ্যা। সিলেটজুড়ে এমন নেতৃবৃন্দের সংখ্যা কিন্তু নেহায়েত কম নয়। তবে গোলাপগঞ্জ ও বিয়ানীবাজার উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটি নিয়ে এ জটিলতা একটু বেশি। এবারও তাই হয়েছে।

কমিটি গঠনের সময় বেঁধে দেয়ার পর কয়েকবার গোলাপগঞ্জ উপজেলার প্রস্তাবিত কমিটি ফেরত পাঠানো হয়েছিল। তৃণমূল পর্যায়ে অসন্তোষের কারণেই তা করতে হয়েছে জেলা আওয়ামী লীগকে। নেতৃবৃন্দ খুব সতর্কভাবেই বিষয়টি ঘেঁটেছেন। এক্ষেত্রে তাদের সামান্য ত্রুটি-বিচ্যুতিতে বড় ধরনের ক্ষতি হতে পারতো দলটির। কিন্তু সে সুযোগই দেননি তারা।

তৃণমূলের সাথে সার্বক্ষনিক যোগাযোগ রক্ষা করেই প্রস্তাবিত কমিটির দুর্বলতাগুলো তারা ধরেছেন এবং বিচার বিশ্লেষণ শেষে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

গোলাপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সর্বশেষ প্রস্তাবিত কমিটি নিয়েও তৃণমূলে চরম অসন্তোষ ছিল। তবে শেষ পর্যন্ত জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের বিচক্ষণতায় সেই অসন্তোষ কাটিয়ে উঠা সম্ভব হয়েছে।বিশেষ করে জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এড. নাসির উদ্দিন খানের বাড়ি ওই এলাকাতে হওয়ায় দায়িত্বটাও ছিলো বেশী।

জানা গেছে, অনুমোদিত কমিটিতে গোলাপগঞ্জ পৌরসভার বর্তমান ও সাবেক দুই মেয়রের দুই ভাইকে রাখা হয়েছে। এরমধ্যে একজনের অবস্থান সম্পাদকীয় পর্যায়ে।বিয়ানীবাজার উপজেলায় রাজনৈতিক নানা কৌশল অবলম্বন করে একটি গ্রহনযোগ্য কমিটি উপহার দিয়েছেন তারা।

তৃণমূল নেতাকর্মীরা মনে করছেন, এমন প্রচুর রাজনৈতিক মুন্সিয়ানার উদাহরণ রয়েছে। আর এসব কারণে গোলাপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ যে কমিটি পেয়েছে, তা অবশ্যই একটা গ্রহণযোগ্য এবং অত্যন্ত কার্যকর কমিটি হবে। এই কমিটির নেতৃত্বে দলটির এই ইউনিট বহুদুর এগিয়ে যাবে বলেও মানছেন তারা।

এ ব্যাপারে গোলাপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের তৃণমূল পর্যায়ের কয়েকজন নেতা বলেন, এই কমিটি নিয়ে আমরা সন্তুষ্ট। মনে হচ্ছে আওয়ামী লীগের কার্যক্রম সুন্দরভাবেই এগুবে।

একইভাবে বিতর্ক ছিল বিয়ানীবাজার উপজেলার প্রস্তাবিত কমিটি গুলো নিয়ে। এক্ষেত্রেও যথেষ্ট মুন্সিয়ানার পরিচয় দিয়েছে জেলা আওয়ামী লীগ।

এ উপজেলার উপজেলা চেয়ারম্যান আবুল কাশেম পল্লবসহ ত্যাগী নেতৃবৃন্দকে যথেষ্ট মূল্যায়ন করা হয়েছে বলে মনে করছেন তৃণমূল নেতাকর্মীরা।

মোটামুটি দুই উপজেলা কমিটি গঠন ও অনুমোদনের ক্ষেত্রে এডভোকেট মো: লুৎফুর রহমান ও এডভোকেট মো: নাসির উদ্দিন খানের রাজনৈতিক প্রজ্ঞা ও দুরদর্শিতা ব্যাপক প্রশংসা কুড়াচ্ছে তৃণমূলে।

 

গোলাপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ পূর্ণাঙ্গ কমিটি :

কমিটিতে যারা স্থান পেলেন তারা হলেন- সভাপতি- এডভোকেট ইকবাল আহমদ চৌধুরী, সহ-সভাপতি লুৎফুর রহমান, মুবিন আহমদ জায়গীরদার, রফিক আহমদ মাখন (ভাদেশ্বর), মস্তাব আহমদ চেয়ারম্যান, রুকন উদ্দিন, জিল্লুর রহমান, আবুল ফজল চৌধুরী সাহেদ, মাহমুদ আহমদ চৌধুরী ও জহির উদ্দিন।

সাধারণ সম্পাদক- রফিক আহমদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান চৌধুরী রিংকু, দেলওয়ার হোসেন চুন্নু, আকবর আলী ফখর, আইন বিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট নিমার আলী, কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক বোরহান উদ্দিন (ভাদেশ্বর), তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক ফরহাদ আহমদ (ঢাকাদক্ষিণ), ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক শাহাব উদ্দিন (ঢাকাদক্ষিণ), দপ্তর সম্পাদক নাজিমুল হক লস্কর (আমুড়া), ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক আবুল লেইস, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আলিম উদ্দিন বাবলু, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবু আহাদ বাবলু, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক এম এ মুমিত হীরা চেয়ারম্যান, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক আঙ্গুরা বেগম (ঢাকাদক্ষিণ), মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক তোতা মিয়া (কমান্ডার), যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল হানিফ খান, শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক কাজল কান্তি দাস, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক আবদুল মান্নান কয়েস (চৌঘরি), সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক আবু সুফিয়ান মোহাম্মদ আজম এবং স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক রুমেল সিরাজ।

সাংগঠনিক সম্পাদক খুরশেদ আলম চৌধুরী রিপন (ভাদেশ্বর), সৈয়দ হাছিন আহমদ মিন্টু ও খায়রুল হক (ঢাকাদক্ষিণ)। সহ-দপ্তর সম্পাদক হোসেন আহমদ (ঢাকাদক্ষিণ), সহ-প্রচার সম্পাদক মনসুর চৌধুরী ও কোষাধ্যক্ষ শরিফ উদ্দিন আহমদ (বাঘা)।

সদস্যরা হলেন- ময়নুল হক (ভাদেশ্বর),আতাউর রহমান (বাদেপাশা), কামাল পারভেজ (ঢাকাদক্ষিণ),মখলিছুর রহমান (ফুলবাড়ি),অজিউর রহমান ছানা, এনামুল হক রুহেল, আর্জুমন্দ আলী,মাহতাব উদ্দিন জেবুল (লক্ষ্মীপাশা), নুরুল ইসলা, তমিজ উদ্দিন,সেলিম উদ্দিন (ভাদেশ্বর), আব্দুস সামাদ (বাঘা),মহসিন মজনু (ভাদেশ্বর), হেলাল আহমদ (ফাজিলপুর), ফয়ছল আহমদ চৌধুরী (ঢাকাদক্ষিণ), আবদুল মালিক জানু, খায়রুল ইসলাম জাহাঙ্গির, এম জেড আলম, আবদুল হান্নান (ভাদেশ্বর), জাফরান জামিল (বাঘা),  জয়নাল আবেদীন (ভাদেশ্বর হাওরতলা), আবুল কাশেম সেবুল, আব্দুস সামাদ(ঢাকাদক্ষিণ), ফরিদ উদ্দিন ইরান (পৌরসভা), এম এ ওদুদ এমরুল, সেলিম উদ্দিন (বুধবারিবাজার), কামাল উদ্দিন,  সৈয়দ এহতেশামুল হক (ভাদেশ্বর),  রুহেল আহমদ রিপন, ইসমাইল হোসেন সিরাজী (শরীফগঞ্জ), আজমল হোসেন (ফুলবাড়ি), অরুন কুমার দে (ফুলবাড়ি), ক্বারি তোফায়েল জিলু,  শফি আহমদ চৌধুরী, তারেক আহমদ।

বিয়ানীবাজার উপজেলা আওয়ামী লীগ পূর্ণাঙ্গ কমিটি  :

কমিটিতে যারা স্থান পেলেন তারা হলেনসভাপতি- বীরমুক্তিযোদ্ধা আতাউর রহমান খান,সহ-সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা আব্দুল আহাদ সাবেক চেয়ারম্যান, আহমদ হোসেন বাবুল, বীরমুক্তিযোদ্ধা হারুন হেলাল চৌধুরী, নাজীম উদ্দিন, সাবেক চেয়ারম্যান শামসুদ্দিন খান, মুস্তাক আহমদ, সালেহ আহমদ বাবুল, অধ্যাপক আব্দুল খালিক, আশরাফুল ইসলাম।

সাধারণ সম্পাদক-দেওয়ান মাকসুদুল ইসলাম আউয়াল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশিদ চৌধুরী দিপু, আব্দুস শুকুর পৌর-মেয়র, আবুল কাসেম পল্লব( উপজেলা চেয়ারম্যান), আইন বিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট জসিম উদ্দিন, কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক ইসলাম উদ্দিন (তিলপাড়া), তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক আতিকুর রহমান (কসবা), ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক শিহাব উদ্দিন (চেয়ারম্যান), দপ্তর সম্পাদক বেলাল আহমদ (মাথিউরা), ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল মুসাব্বির মাস্টার, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক জুবের আহমদ, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক ময়নুল ইসলাম, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক এমাদ উদ্দিন সাবেক চেয়ারম্যান, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক ডা. তাহমিনা খাতুন (মাথিউরা), মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল কাদির (কমান্ডার), যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল কুদ্দুস টিটু, শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল কাদির(দুবাগ চরিয়া), শ্রম বিষয়ক সম্পাদক আবুল হোসেন খসরু (ফতেহপুর), সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল উয়াদুদ এবং স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক আলমগীর হোসেন রুনু।

সাংগঠনিক সম্পাদক মো. জামাল হোসেন (উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান), হুমায়ুন কবির (ঘুঙ্গাদিয়া) ও মাসুদ হোসেন খান (বালিঙ্গা)। সহ-দপ্তর সম্পাদক জহিরুল হক রাজু , সহ-প্রচার সম্পাদক মো. আমান উদ্দিন ও কোষাধ্যক্ষ গৌছ উদ্দিন খান খোকন।

সদস্যরা হলেন- ময়নুল ইসলাম (সাবেক সহ সভাপতি), শামসুজ্জামান শাহজাহান, ময়নুল হোসেন (সাবেক কোষাধ্যক্ষ), মাহমুদ আলী (চেয়ারম্যান), আবদুস সালাম (চেয়ারম্যান), জহুর উদ্দিন (চেয়ারম্যান), আক্তারুজ্জামান আজব আলী, আমির উদ্দিন আলীওর, মোহাম্মদ হোসেন খসরু, সুরমান আলী, কনক কান্তি ধর, নোমান আহমদ (শ্রীধরা), কামরুল হক (ঘুঙ্গাদিয়া), সাগর দাশ চৌধুরী, আরবাব হোসেন খান, বীরমুক্তিযোদ্ধা রফিক উদ্দিন, বেলাল আহমদ (তিলপাড়া), জয়নুল ইসলাম রফিক (ফেনগ্রাম), আবদুল কাদির (লাল বাউরভাগ), কামাল হোসেন (কাকরদিয়া), হোসেন আহমদ এনু, সালেহ আহমদ (আলীনগর), রফিকুল ইসলাম চৌধুরী রনি (চারখাই), আফজাল হোসেন (পলাশ), লুৎফুর রহমান ফয়সল, শাহিদুর রহমান জায়দুল, আবদুল মান্নান মিন্টু, আছার উদ্দিন, ফয়সল আহমদ (চারখাই), ছাদেক আহমদ আজাদ, মঞ্জুরুল ইসলাম মঞ্জু (চারখাই), পাভেল মাহমুদ, ইকবাল হোসেন তারেক, কাওসার আহমদ (ঘুঙ্গাদিয়া), সাইদুল ইসলাম (সালেশ্বর)।

শেয়ার করুন...
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  


বিডি সিলেট নিউজ মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। © ২০২১
Design & Developed BY Cloud Service BD