সোমবার, ১৪ জুন ২০২১, ০২:১২ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম ::
সাবেক মেয়র কামরানের মৃত্যুবার্ষিকীতে পরিবারের বিভিন্ন কর্মসূচী গ্রহণ সিলেটে ১০টি ঘুমের ট্যাবলেট খাইয়ে আইনজীবী আনোয়ারকে হত্যা করেন স্ত্রী বিয়ানীবাজার থানার খসিরববন্দে বাড়ির সামনে থেকে অপহৃত মেয়েটি উদ্ধার সিলেট সীমান্তে ৪৮ বিজিবি’র ১৪৯ পরিবারকে খাদ্য সহায়াতা প্রদান সাবেক মেয়র কামরানের ১ম মৃত্যুবার্ষিকীতে সিলেট মহানগর আ.লীগের কর্মসূচী সাবেক শিক্ষামন্ত্রী নাহিদ এমপি’র প্রচেষ্টায় চারখাইয়ে হাইওয়ে থানা হচ্ছে শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রতি সাধারন মানুষ সন্তুুষ্ঠ – শফিউল আলম নাদেল নিসচা’র কেন্দ্রীয় সহ সাংঠনিক সম্পাদক মিশুর সাথে বিয়ানীবাজার শাখার মতবিনিময় সভা সিলেট ৩ আসনের নৌকার মাঝি হাবিবকে ফুল দিয়ে বরণ করলেন এড.নাসির উদ্দিন খান বড়লেখায় নিসচার সংবর্ধনা অনুষ্ঠান ছয়ফুল আলম পারুল এর কাব্যগ্রন্থ ‘ছন্দপতন’র মোড়ক উন্মোচন সাবেক মেয়র মরহুম বদর উদ্দিন কামরানের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে দোয়া মাহফিল ও শিরনী বিতরণ হযরত শাহজালালের মাজারে এবারও ওরস হচ্ছে না আইনি সহযোগিতা মাধ্যেমে মৌলিক অধিকার নিশ্চিত করতে হবে – জগদীশ দাস স্কুল-কলেজে ছুটি আবার বাড়ল
cloudservicebd.com

বুকের ওপর বসে কাটেন গলা, স্বামীর হাত-পাও আলাদা করেন ফাতেমা!

20210601 153929 - BD Sylhet News

বিডি সিলেট ডেস্ক::  রাজধানীর মহাখালী থেকে মাথা ও হাত-পা বিহীন খণ্ডিত মরদেহ উদ্ধারের ঘটনার রহস্য উদঘাটন করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। নিহত ময়না মিয়ার প্রথম স্ত্রী ফাতেমা খাতুন তাকে জবাই করে হত্যা করেন। লাশ গুম করতে হাত-পা ও মাথা কেটে ছয় টুকরো করে বিভিন্ন এলাকায় ফেলে দেন ফাতেমা।

আজ মঙ্গলবার ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান ডিবির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার এ কে এম হাফিজ আক্তার।

সংবাদ সম্মেলনের তিনি বলেন, ‘গত রোববার রাতে মহাখালী এলাকা থেকে খণ্ডিত মরদেহ উদ্ধারের পর ওয়ারলেস এলাকার টিএনটি মাঠ সংলগ্ন ঝিল থেকে মাথা উদ্ধার করা হয়। এ ছাড়া মহাখালীর আমতলি এলাকা থেকে কাটা দুই হাত ও পা উদ্ধার করে  তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানা পুলিশ।’

পুলিশ কমিশনার বলেন, ‘খণ্ডিত মরদেহের উদ্ধারের পর নিহতের দ্বিতীয় স্ত্রীর সঙ্গে কথা বলে তার স্বামীর নিখোঁজ হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত হয় পুলিশ। এরপর বনানীর কড়াইল বস্তি এলাকায় অভিযান চালিয়ে নিহতের প্রথম স্ত্রী মোছা. ফাতেমা খাতুনকে গতকাল সোমবার গ্রেপ্তার করে ডিবি গুলশান বিভাগ।’

আসামিকে জিজ্ঞাসাবাদ ও ঘটনার বর্ননা দিয়ে তিনি জানান, গত ২৩ মে থেকে তার স্বামী  ময়না মিয়া তার সঙ্গে তার বাসাতেই ছিলেন। কিন্তু টাকা পয়সা ভাগবাটোয়ারা নিয়ে তাদের মধ্যে কথা-কাটাকাটি ও ঝগড়া হয়। তখন ফাতেমা তার স্বামীকে একাই হত্যা করার পরিকল্পনা করেন। পরিকল্পনা মোতাবেক তিনি তার স্বামীকে জুসের সঙ্গে ঘুমের ওষুধ খাওয়ান। এতে ময়না মিয়া নিস্তেজ হয়ে এক দিন বাসায় ঘুমান। পরের দিন একটু সতেজ হলে পানি চান ময়না মিয়া। কিন্তু আবারও জোর করে ওষুধ মিশ্রিত জুস খাওয়ান তার স্ত্রী ফাতেমা।

পুলিশ জানায়, পরের বার ঘুমের ওষুধ খাওয়ানোর পর ময়নার হাত বেঁধে ফেলেন ফাতেমা। এ সময় ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে খাট থেকে দুজনই পড়ে যান। তখন ফাতেমা তার ঘরে থাকা ধারাল ছুরি দিয়ে ময়না মিয়ার বুকের ওপরে বসে গলা কেটে দেন। এরপর ময়না মিয়ার মৃত্যু নিশ্চিত হলে লাশ গুম করতে মাথা ও হাত পা কেটে আলাদা আলাদা ব্যাগে ঢুকান ফাতেমা। পরবর্তীতে একটি রিকশায় করে ব্যাগগুলো নিয়ে মহাখালী ও গুলশান লেক এলাকায় ফেলে দিয়ে যান।

ডিবি পুলিশ জানায়, গ্রেপ্তারের পর ফাতেমার দেখানো জায়গা থেকে তার বোরখা, নিহতের রক্তমাখা জামা কাপড়, ছুরি ও অনান্য জিনিস উদ্ধার করা হয়েছে।

বিডি সিলেট নিউজ ডটকম/ সৌজন্যে:আমাদের সময়

শেয়ার করুন...
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  


বিডি সিলেট নিউজ মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। © ২০২১
Design & Developed BY Cloud Service BD