বৃহস্পতিবার, ০৪ মার্চ ২০২১, ০৫:৫৪ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম ::
এইচ টি ইমামের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শোক দেশে সাড়ে ৪৬ লাখ মানুষ করোনা টিকার জন্য নিবন্ধন করেছেন এইচ টি ইমাম আর নেই সিলেটের কানাইঘাটে ৩ সন্তানের জননী ধর্ষণের শিকার বাংলাদেশে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে: প্রধানমন্ত্রী  সালাউদ্দিন আলী আহমদের মৃত্যুতে সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাবের শোক কোম্পানীগঞ্জে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ঢাকা ম্যারাথন-২১ অনুষ্ঠিত দরগাহ কবরস্থানে চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন সিলেটের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী সালাহ উদ্দিন আলী ঘুমানোর আগে স্মার্টফোন ব্যবহার ডেকে আনছে মহাবিপদ খেলাধূলার মাধ্যমে যুব সমাজকে সঠিক পথ দেখাতে হবে: আশফাক ঘন ঘন সড়ক দুর্ঘটনা রোধে ৬দফা দাবিতে রশিদপুরে তিন উপজেলাবাসীর অবস্থান কর্মসূচি পালিত তিন বছর পর বড় পর্দায় ক্যামেরার সামনে দাঁড়ালেন ইলিয়াস কাঞ্চন বিশিষ্ট ব্যবসায়ী সালাহ উদ্দিন আলী’র মৃত্যুতে সাবেক শিক্ষামন্ত্রীর শোক হজ পালনে টিকা গ্রহণ বাধ্যতামূলক আলোচনায় ভারতীয় আইপিএস অফিসার নভজোৎ সিমি
cloudservicebd.com

ডিসি-এসপির প্রত্যাহার চেয়ে কোম্পানীগঞ্জে কাদের মির্জার ডাকে হরতাল

FB IMG 1613535223443 - BD Sylhet News

বিডি সিলেট ডেস্ক::  নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ থানা ১২ ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে ঘেরাও করে অবস্থান ধর্মঘট পালন করছেন সেতুমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই আবদুল কাদের মির্জা। পাশাপাশি তাঁর ডাকে আজ বুধবার সকাল থেকে উপজেলায় হরতাল চলছে। জেলা প্রশাসক (ডিসি), পুলিশ সুপার (এসপি), কোম্পানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ও ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা-তদন্তকে প্রত্যাহার এবং চরকাঁকড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতা ফখরুল ইসলাম ওরফে সবুজের গ্রেপ্তারের দাবিতে গতকাল মঙ্গলবার রাত সাড়ে আটটা থেকে তিনি থানা ঘেরাও কর্মসূচি শুরু করেন। আর সকাল থেকে শুরু হয়েছে হরতাল।

আজ বুধবার সকাল সাড়ে নয়টায় এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত কয়েক শ নেতা-কর্মী নিয়ে কাদের মির্জা থানার ফটকে অবস্থান করছিলেন। হরতালের কারণে উপজেলার দোকানপাট সব বন্ধ আছে। কোনো যানবাহন কোম্পানীগঞ্জে ঢুকতে পারছে না। কাদের মির্জা ঘোষণা দিয়েছেন, দাবি না মানা পর্যন্ত হরতাল চলবে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গতকাল সন্ধ্যায় কোম্পানীগঞ্জের বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা ফেনীর দাগনভূঁইয়া ও চট্টগ্রামে তাঁর ওপর হামলা ও তাঁকে হত্যা ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে বসুরহাট রূপালী চত্বরে সংবাদ সম্মেলন করেন। এতে তিনি ফেনীর সাংসদ নিজাম উদ্দিন হাজারী, নোয়াখালীর সাংসদ একরামুল করিম চৌধুরীসহ দাগনভূঁইয়া ও সোনাগাজী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানদের অভিযুক্ত করেন।

সূত্র জানায়, এই সংবাদ সম্মেলন চলাকালে উপজেলার টেকের বাজারে আবদুল কাদের মির্জার বিরুদ্ধে একটি সমাবেশ করেন চরকাঁকড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতা ফখরুল ইসলাম ওরফে সবুজ। কাদের মির্জা কোম্পানীগঞ্জকে জিম্মি করে রেখেছেন উল্লেখ করে তিনি বিভিন্ন অভিযোগ তুলে ধরেন। সমাবেশ শেষে সেখানে একটি বিক্ষোভ মিছিল হয়। সমাবেশের খবরে কাদের মির্জার একদল সমর্থক টেকের বাজারে যান। সেখানে দুই পক্ষের মধ্যে হাতাহাতি ও পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। একপর্যায়ে থানা থেকে পুলিশ গিয়ে ফখরুল ইসলামকে আটক করেন। এ সময় সমর্থকেরা পুলিশের কাছ থেকে ফখরুলকে ছিনিয়ে নিয়ে যায়। এ ঘটনার প্রতিবাদে কাদের মির্জা রাত সাড়ে আটটার দিকে কয়েক শ নেতা-কর্মী নিয়ে থানার সামনে অবস্থান নেন। সেখানে দেওয়া বক্তব্যে তিনি নোয়াখালীর ডিসি মোহাম্মদ খোরশেদ আলম খান, এসপি আলমগীর হোসেন, কোম্পানীগঞ্জের ওসি মীর জাহেদুল হক ও ওসি (তদন্ত) রবিউল হককে প্রত্যাহারের দাবি জানান। পাশাপাশি সাংসদ নিজাম উদ্দিন হাজারী ও একরামুল করিম চৌধুরীর বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি তাঁর।

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলেন, গতকাল রাতের দিকে নেতা-কর্মীর সংখ্যা কিছুটা কমে গেলেও আজ সকাল থেকে বাড়তে থাকে।কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি মীর জাহেদুল হক এই খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।সূত্র-প্রথম আলো

শেয়ার করুন...
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  


বিডি সিলেট নিউজ মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। © ২০১৭ - ২০২০
Design & Developed BY Cloud Service BD