সোমবার, ০৮ মার্চ ২০২১, ০৮:৫৫ অপরাহ্ন

শিরোনাম ::
সিলেট বিভাগীয় তথ্য অফিসের পরিচালক জুলিয়া যেসমিন মিলিকে বিভিন্ন সংগঠনের অভিনন্দন সততা ও নিষ্ঠার সাথে ব্যবসা করা ইবাদতের শামিল – নাদেল বেগম জিয়ার সুস্থতা কামনায় এতিমদের মধ্যে খাবার বিতরণ অধিকার নারীদেরই আদায় করে নিতে হবে: প্রধানমন্ত্রী সিলেটে ৩ ছিনতাইকারী গ্রেপ্তার এয়ারপোর্ট থানায় মার্চের “ওপেন হাউজ ডে” অনুষ্ঠিত নারীদেরকে পেছনে ফেলে দেশকে এগিয়ে নেওয়া সম্ভব না: মন্ত্রী ইমরান আহমদ ঐতিহাসিক ৭ মার্চের স্মারক গ্রন্থ ‘মুক্তির ডাক’-এর মোড়ক উন্মোচন করলেন প্রধানমন্ত্রী সিলেটে মুজাহিদ কমিটির তিন ব্যাপী ওয়াজ মাহফিল সমাপ্ত ‘দৈনিকসিলেটডটকম প্রবাসের সাথে বাংলাদেশের সেতুবন্ধন তৈরী করেছে’ পটুয়াখালীতে মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে যুবক নিহত ১৮০০ মেগাহার্টজ ব্যান্ডের তরঙ্গ কিনল গ্রামীণফোন-রবি-বাংলালিংক বঙ্গন্ধুর ভাষণ শোনে জাতি যুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়ে – মুহিব উস সালাম রিজভী ভারত বাংলাদেশ যৌথ প্রযোজনায়”মোহন বাঁশি শোনা যায়”ধামাইল গানের আনুষ্ঠানিক সুচনা এক দিনের সফরে সিলেট এসে পৌঁছেছেন প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী
cloudservicebd.com

মুসল্লিদের জুতা সাজিয়ে রেখেই প্রশান্তি পান এক অমুসলিম!

20210209 131941 - BD Sylhet News

বিডি সিলেট ডেস্ক:: আল-মাওয়াদ্দাহ মসজিদ, সিঙ্গাপুর। প্রতি শুক্রবার এ মসজিদে ব্যতিক্রমধর্মী কাজে নিয়োজিত এক অমু’সলিম যুবকের দেখা মেলে। প্রচণ্ড গরমেও মসজিদের বাইরে বসে মুসল্লিদের জুতাগুলো সোজা করে সারি সারিভাবে সাজিয়ে রেখে প্রশান্তি লাভ করে।

অ্যাংকল স্টিভেন। সে অমু’সলিম। শুক্রবার শুধু মুসল্লিদের জুতা সোজা করে সাজিয়ে রাখায় আ’নন্দ পায় সে। এ আ’নন্দ অনুভূতি থেকেই প্রতি শুক্রবার সিঙ্গাপুরের আল-মাওয়াদ্দাহ মসজিদের সামনে চলে আসে।ইমরান মুস্তাফা নামের এক স্কুল শিক্ষক মুসল্লি তার ফেসবুকওয়ালে তুলে ধরে এ ঘ’টনা।

যা খবর আকারে প্রকাশ করেছে ইলমফিড.কম।ফেসবুকে ইরফান মুস্তাফা জানান, ‘মুসল্লিরা মসজিদে এসে যখন প্রচণ্ড সূর্যের তাপে বাইরে অবস্থান করতে পারে না। মসজিদের ভে’তরে এসিতে নামাজ আদায় করে তখন অ্যাংকল স্টিভেন প্রচণ্ড গরমের মধ্যেই মুসল্লিদের জুতা সারি সারি করে সাজিয়ে রাখতে ব্যস্ত সময় পার করে।

অ্যাংকল স্টিভেন জানায়, মসজিদের বাইরে জুতাগুলো সারি সারি সাজিয়ে রাখলে সুন্দর দেখা যায়। আমি মসজিদের কাছাকাছিই থাকি এবং প্রতি শুক্রবার আসার চেষ্টা করি।এ কাজটি আমি কেন করি, তা আমার জানা নেই তবে সারি সারি সাজানো জুতাগুলো দেখতে আমার ভালো লাগে।

আর মসজিদে এসে এ কাজ করে আমি প্রশান্তি লাভ করি।অ্যাকংল স্টিভেন অনুপ্রেরণাদানকারী সমাজ সচেতন মানুষ। সাজানো-গোছানো ও সুন্দর পরিপাটি যে কোনো জিনিস দেখতে কার না ভালো লাগে? ভালো কাজ করতে চাইলে যে কোনো সময় যে কোনো জায়গা থেকেই করা যায়।

প্রয়োজন শুধু একটি ইতিবাচক মা’নসিকতার।অমু’সলিম হয়েও অ্যাংকল স্টিভেন মু’সলিম’দের অগোছালো জুতাগুলো সারি সারি সাজিয়ে রেখে সেই ইতিবাচক মা’নসিকতা পরিচয় ও অনুপ্রেরণা তুলে ধরেছেন। শুভ কামনা অ্যাংকল স্টিভেনের প্রতি…

শেয়ার করুন...
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  


বিডি সিলেট নিউজ মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। © ২০১৭ - ২০২০
Design & Developed BY Cloud Service BD